মাইকেল কলিন্সকে স্মরণ

মাইকেল কলিন্স। না, তিনি চাঁদে নামেননি। এ্যাপলো ১১ মুল চন্দ্রযানে থেকে ঘুরেছেন চাঁদের চারপাশ দিয়ে। মুল চন্দ্রযান থেকে, ছোট্ট আরেকটি বাহন, লুনার মডিউল -এ চেপে নীল আর্মস্ট্রং আর এডউইন বাজ্জ অলড্রিন নেমেছেলেন চাঁদে। সেটাই ছিলো চাঁদে মানুষের প্রথম পদার্পণ। সে ছিলো এক হুলুস্থুল ব্যাপার। তখন স্কুলের প্রাথমিক ধাপে। আব্বার পোস্টিং রাজশাহী কলেজে। শহরে মাত্র দুটো টেলিভিশন। লম্বা বাঁশ, তার মাথায় লম্বা এক এন্টেনা। চাঁদে মানুষের প্রথম পদপাত ঘটার দৃশ্য, ঢাকা টেলিভিশন দেখাবে। কোন ভাবেই যেন এটা মিস না যায়, পর্দা ঝিরঝির না করে, সে জন্য আরও লম্বা বাশ যোগাড় এবং তা দিয়ে এন্টেনা আরও উঁচুতে নেবার চেস্টা ছিলো পাড়া প্রতিবেশী, তার চেয়েও বেশি আব্বার ছাত্রদের। অনেকেই দোয়া করছেন, আকাশে যেন মেঘ থাকে। কেন তা জানিনা, মেঘ থাকলে টেলিভিশনে ছবি দেখা যায় পরিস্কার। দেখলাম নীল আর্মস্ট্রং আর এডউইন বাজ্জ অলড্রিন এর চাঁদে নামা। মুল চন্দ্রযান এ্যপলো ১১ দেখলাম। সেখানেই ছিলেন মাইকেল কলিন্স। নীল আর্মস্ট্রং আর এডউইন বাজ্জ অলড্রিন পুনরায় চাঁদ থেকে ওই লুনার মডিউল এ চেপে মুল চন্দ্রযানে। ফিরে এলেন। মাইকেল কলিন্স ওদের নিয়ে ফিরলেন চাঁদ থেকে পৃথিবীতে। ফেরার পর, পেপারে টিভিতে উনার ছবি দেখেছি অনেক। নীল আর্মস্ট্রং যখন চাঁদের মাটি নিয়ে ঢাকায় এসেছিলেন তখন মাইকেল কলিন্স ছিলেন কিনা আমি মনে করতে পারছিনা। কারন, সে সময় তিনি ইউএস এয়ার ফোর্স এর উচ্চ পর্যায়ের অফিসার। ১৯৩০ সালের ৩১ অক্টোবর, ইতালীতে জন্ম নেয়া, মানুষের চন্দ্র বিজয়ের অন্যতম একজন, মাইকেল কলিন্স চাঁদ থেকে ফিরে এলেও, চিরকালের জন্য ফিরে গেছেন এই পৃথিবী থেকে। ২৮ এপ্রিল ২০২১ প্রয়াত হয়েছেন মাইকেল কলিন্স। প্রার্থনা করি তাঁর আত্মা যেন শান্তিতে থাকে।
মুজতবা সউদ