‘ছেড়ে যাবোনা কথা দিলাম’ দিয়ে শুটিংয়ে ফিরলেন এলিনা শাম্মী

এলিনা শাম্মী একজন উপস্থাপনার পাশাপাশি তিনি বড় ও ছোট পর্দায় বর্তমান সময়ের অন্যতম ব্যস্ততম একজন অভিনেত্রী।২০১২ সালে দেশ টিভিতে একটি লাইভ অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা থেকে মিডিয়াতে পদার্পন করেন এলিনা শাম্মী।
এরপরে অভিনয়ের দিকে মনোনিবেশ করেন ২০১৪ তে বিটিভিতে ‘শেষ বিকেলের রোদ ‘ নাটকে অভিনয়ের মধ্যে দিয়ে। এরপরে আর থেমে থাকেনি এলিনা শাম্মী এখন পর্যন্ত প্রায় একক নাটক এবং ধারাবাহিক নাটক মিলিয়ে ১৫০টির মতো’তে অভিনয় করেছেন এবং কেন্দ্রীয় চরিত্রে একক ও ধারাবাহিকে ৩০ টির মত।তবে বেশি কিছুদিন কাজ থেকে দূরে দিলেন এই অভিনেত্রী জানা যায় করোনা’র প্রকোপের জন্য বড় শুটিং থেকে বিরত থাকলেও চ্যানেলের ইন্টারভিউ এবং প্রোগ্রামগুলোতে সরব ছিলেন।
দীর্ঘ তিন মাস পরে নাটকের শুটিংয়ের মধ্যে দিয়ে ফিরেছেন তিনি।উত্তরায় গত দুই দিন একটি একক নাটকের শুটিং করেছেন।একক নাটক ‘ছেড়ে যাবোনা কথা দিলাম’ এটি রচনা ও নির্মাণ নিবিড় চৌধুরী।
নাটকের গল্পে দেখা যাবে মিষ্টার আবির বয়স পঞ্চাশের কোঠায় এই অন্ধ ভদ্রলোক ছেলে ও ছেলের বৌয়ের সাথে থাকেন ছেলে ও ছেলের বৌ যথেষ্ট যত্নে রাখেন তাকে। আবির সাহেবের দিন যাপন একটি রুটিনেই সীমাবদ্ধ। দুপুর গড়াতেই তার ছেলের বউ সামিয়া তাকে তার স্ত্রী মায়ার কবরের কাছে রেখে আসেন আবার সন্ধ্যা হবার আগেই তার ছেলে সাকিব অফিস শেষে বাড়ি ফেরার সময় বাবাকে নিয়েই বাড়ি আসে। আবির সাহেবের স্ত্রী মায়া বহু বছর আগেই পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করেছেন। একদিন বিকেলে সাকিবের আবির সাহেবকে নিতে আসতে দেরি হচ্ছিলো কারণ অফিসে সে বিশেষ কাজে আটকে গিয়েছিলো, বাবাকে একটা ফোন দেয়ার ফুরসত পাচ্ছিলো না। সাকিবের দেরি দেখে আবির একা একাই বাড়ি ফেরার প্রস্ততি নিলেন তার সাদা ছড়ির সাহায্য নিয়ে। রাস্তা পার হতে গিয়ে তার হাতের মোবাইলটা পরে গিয়ে ভেংগে গেলো। রাস্তার পাশের দোকানে চা খাচ্ছিলো এক যুবক এগিয়ে গেলো আবির সাহেবকে রাস্তা পার হতে সাহায্য করতে যুবকটি আবির সাহেবকে বসালো দোকানের বেঞ্চে।যুবকটি জিজ্ঞেস করল,চাচা প্রতিদিন দেখি আপনি ওই কবরের পাশে এসে বসে থাকেন।
এর মধ্যে সাকিব আর সামিয়া চলে আসে বাবা কই ছিলেন এতক্ষন, টেনশনে শেষ হয়ে যাচ্ছি, কোথাও পাচ্ছিনা তোমাকে আবির সাহেব বলে “তোরা ভাবিসনা, এই ছড়ি যতদিন আছে, ততদিন তোর বাবা নিরাপদ আছে ।আবির সাহেব আবার সাদা ছড়িতে পথ দেখে হাটতে থাকে দুই পাশে সাকিব আর সামিয়া আরেকবার ঘুরে আসে যুবকের কাছে আবির। যুবকের কানে কানে বলে, “যে গল্পটি বললাম এটা শুধু তোমার জন্য আর কেউ জানবেনা “যুবক হ্যা সুচক মাথা নাড়ে সাকিব সামিয়া একটু অবাক হয় আবার হাটতে থাকে তিনজন।এভাবেই গল্প এগিয়ে যায়।
নাটকের প্রসঙ্গে অভিনেত্রী এলিনা শাম্মী বলেন-এই গল্পটি একটু ভিন্নতা আমি পেয়েছি কারণ এমন গল্প খুব একটা এখন হয়না।এখানে আমার অভিনয়ের জায়গাটা খুব দারুন ছিল এবং আমি খুব উপভোগ করেছি।এই নিয়ে মিলন ভাইয়ের সাথে তিনবার কাজ করলাম দারুন অভিজ্ঞতা তার সাথে কাজ করে।নির্মাতা নতুন তবে ভালো কাজ করেন এর আগেও ভালো কাজ উপহার দিয়েছেন দর্শকদের তিনি।আমার চরিত্রটির নাম মায়া।আমরা শুটিং-এ সকল প্রকার স্বাস্থ্য সম্মত মেনেই কাজ করছি।’
নাটকে অভিনয় করেছেন আনিসুর রহমান মিলন, এলিনা শাম্মী ,আহমেদ সাজু, সামন্তা শিমু।পরিচালক জানান এটি ঈদে প্রচারিত হবে একটি বেসরকারি চ্যানেলে।
উল্লেখ্য শাহ আলম কিরণ পরিচালিত ‘৭১ মা জননী ‘ সিনেমার মধ্যে দিয়ে বড় পর্দায় পা রাখেন এলিনা শাম্মী। এরপরে ‘স্বর্গ থেকে নরক ‘ সহ বেশ কয়েকটি ছবি মুক্তি পেয়েছে তার অভিনীত।মুক্তির অপেক্ষায় আছে ‘গন্তব্য ‘ সহ প্রায় চারটি ছবি।
গেলো ঈদেও বেশ কয়েকটি নাটকে অভিনয় করেছেন। নাটকগুলো প্রচার হওয়ার পর এবং অনলাইনে অবমুক্ত হওয়ার পর থেকেই দর্শকের ভালোবাসায় এবং প্রশংসায় ভাসছেন এই অভিনেত্রী। পরিচালক মাবরুর রশিদ বান্নাহ এর সাথে দুটি নাটক “লুজারস” যেখানে শাম্মীর বিপরীতে ছিলেন মোশাররফ করিমএবং আরেকটি ” হিটার হামজা ” যেখানে বিপরীতে ছিলেন আ,খ,ম হাসান। দুটি নাটকই বেশ সাড়া পান দর্শকদের কাছ থেকে।
রোমান রায়