সাগর, নেতা থেকে অভিনেতা

এক সময় তিনি ছিলেন তুখোর ছাত্রনেতা। মিছিলে মিছিলে, শ্লোগানে শ্লোগানে রাজপথ কাঁপিয়ে তুলতেন। ১৯৯৬ সালে আকস্মিকভাবেই নেতা থেকে অভিনেতা হয়ে উঠলেন। উদ্দেশ্য নিজের অভিনয় প্রতিভা দিয়ে সিনেমা হলের পর্দা কাঁপানো। অভিনয় করলেন গুণী নির্মাতা নাদিম মাহমুদ পরিচালিত ‘মহাসম্মেলন’ ছবিতে। তরুণ বয়েসী ছাত্রনেতা এখন এই ছবিতে তার বিপরীতে নায়িকা হিসেবে পেলেন ওই সময়কার ঢাকার চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় ও প্রতিষ্ঠিত নায়িকা অরুণা বিশ্বাসকে। ১৯৯৬ সালের অন্যতম ব্যবসা সফল ছবি ছিল ‘মহাসম্মেলন’। নেতা থেকে অভিনেতা হয়ে ওঠার প্রথম ধাপটা বেশ সাফল্যের সাথেই পার করলেন। প্রিয় পাঠক, বলছিলাম চিত্রনায়ক সাগরের কথা। পারিবারিক নাম মোহাম্মদ আলী ভুট্টো। ঢাকার আজিমপুরের ছেলে সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ আলী ভুট্টোই ঢাকার চলচ্চিত্রের অর্ধশতাধিক ছবির নায়ক সাগর। এই প্রতিবেদকের সঙ্গে কথামালার শুরুতেই সাগর জানান, মাঝখানে কয়েক বছর তিনি অভিমান করে চলচ্চিত্র থেকে দূরে সরেছিলেন। গেল বছর আবার তিনি অভিনয় করেন নিজের ছোট ভাই শাহনেওয়াজ শানু পরিচালিত পলকে পলকে তোমাকে চাই। তবে এই ছবিতে তিনি এন্টি হিরো চরিত্রে অভিনয় করেছেন। সাগর বলেন, অভিনয় আমার নেশা, পেশা নয়। যখন পেশা হওয়ার কথা ছিল, তখন হয়তো এটিকে পেশা হিসাবে নেওয়ার যোগ্যতা আমার হয়নি। কিংবা আমার ভাগ্যে ছিল না যে, পেশাগত অভিনেতা হই। তো মাঝখানে চলচ্চিত্র থেকে দূরে সরে গিয়ে কী করেছেন? সাগর বলেন, “আমার নিজস্ব ব্যবসাকে দাঁড় করিয়েছি তখন। তার ওপর বিয়ে, সংসার, সন্তান নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলাম। এখন আমার ব্যবসা দাঁড় হয়ে গেছে। তাই পরিকল্পনা করেছি এখন থেকে বছরে ২-৩টি ভালো ছবিতে প্রতি বছর অভিনয় করবো।
সাগর অভিনীত উল্লেখযোগ্য কিছু ছবি হলো মহা সম্মেলন, এতিম রাজা, মৃত্যু যন্ত্রণা, সংগ্রামী প্রেম, ডেঞ্জার, জিরো জিরো সেভেন, ক্রস ফায়ার, মহিলা হোস্টেল, মিশন শান্তিপুর, আগুন আমার নাম, ধর মফিজ, গোলাপজান, খুনী চেয়ারম্যান, কঠোর, সিটি রংবাজ, বাংলার হিরো, নষ্ট জীবন, নষ্ট মেয়ে, মাটির পিঞ্জিরা, শুটার, পলকে পলকে তোমাকে চাই ইত্যাদি। মুক্তির অপেক্ষায় আছে ময়নামতির সংসার ছবিটি। সাগর জানান, আরো কিছু ছবিতে অভিনয়ের কথা চলছে। ইচ্ছে আছে সেখান থেকে পছন্দসই কয়েকটি ছবিতে অভিণয় করার। ব্যক্তিগত জীবনে সাগর এখন ব্যবসা এবং পরিবার নিয়ে মহা সুখে আছেন বলে জানান। ভালোবেসে বিয়ে করেছেন দীর্ঘদিনের প্রেমিকা খুশবুকে। সাগর-খুমবু দম্পতি বর্তমানে কাইফ ও কাইনাত নামের এক ছেলে ও এক মেয়ের সুখী বাবা-মা।
অর্ণব আদিত্য