সমস্যা সমাধানে এলাকাভিত্তিক কমিটির প্রতিশ্রুতি আবুলের

‘আমি কাউন্সিলর নির্বাচিত হলে এলাকাভিত্তিক কমিটি গঠন করবো। কমিটিতে দল-মত নির্বিশেষে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা থাকবেন। তাদের নিয়ে এলাকার সমস্যা সমাধান করবো।’ কথাগুলো বলছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিল প্রার্থী মো. এনামুল হক (আবুল)।
পরিবর্তিত অবস্থার মধ্যে ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিল পদে নৌকার মনোনয়ন পান পল্টন থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এনামুল হক (আবুল)।
এনামুল হক বলেন, ‘এলাকাবাসী ভোট দিয়ে আমাকে নির্বাচিত করলে আমি নাগরিক সুবিধা অক্ষরে অক্ষরে পালনের চেষ্টা করবো। এলাকার সমস্যাগুলো হলো মাদকের আখড়া, সন্ত্রাস-চাঁদাবাজি, ধান্দাবাজি। এ বিষয়গুলোকে আইডেন্টিফাই করে সমাধান করা হবে আমার প্রথম পদক্ষেপ।’
তিনি বলেন, ‘আমার দ্বিতীয় পদক্ষেপ হলো ১৩ নং ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষের চাহিদা অনুযায়ী রাস্তাঘাটের সমস্যা, ময়লার সমস্যা, বাতির সমস্যা সমাধান করা। এ সমস্যাগুলোকে গুরুত্ব দেয়া। আর বর্ষাকালে এলাকায় যে জলাবদ্ধতা হয় তা আগের তুলনায় কম। সে বিষয়টি পুরোপুরি সমাধানে কাজ করবো।’
আওয়ামী লীগ সমর্থিত এ কাউন্সিলর প্রার্থী আরও বলেন, ‘এলাকায় যারা ভোটার এবং যারা ভোটার নয়, এমনকি সদ্য ভূমিষ্ঠ শিশুকেও একটা ডাটাবেজের আওতায় আনবো। আমি একটা ফর্ম ছাড়বো; এ ফর্মে এ সকল তথ্য থাকবে। তথ্য সংগ্রহ করার পরে আমি প্রত্যেককে একটি আইডি কার্ড দেবো। এটার মাধ্যমে এলাকার বাসিন্দাদের গণনাও হয়ে যাবে। এলাকায় কতজন মানুষ আছে, তাদের কতটুকু নাগরিক সুবিধা আছে, কতটুকু নাগরিক সুবিধা দরকার ডাটাবেজ থাকলে এই বিষয়গুলোকে আইডেন্টিফাই করা সহজ হবে। আমার কাজ করতেও সুবিধা হবে। নাগরিক সুবিধার দিতেও সুবিধা হবে।’
পল্টন থানা আওয়ামী লীগের এ সভাপতি বলেন, ‘এলাকার ব্যবসায়ীদেরও ডাটাবেজের আওতায় আনা হবে। এখানে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে লোকজন বিভিন্ন সময় হয়রানির শিকার হয়। ব্যবসায়ীদের ডাটাবেজের আওতায় নিয়ে আসা হলে তাদের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে জানা যাবে। কোথাও কোনও সমস্যা হলে দ্রুত সমাধান করা যাবে। আমি এই কাজগুলো করবো। আমি আশা করি, এলাকাবাসী আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে, তাদের সেবা করার সুযোগ দেবেন।’
আলমগীর কবির