অন্তরালয়ের একগুচ্ছ ভিন্ন স্বাদের গান

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান অন্তরালয় বাজারে আসছে নিয়ে আসছে একগুচ্ছ ভিন্ন স্বাদের গান। এসব গানে কন্ঠ দিয়েছেন দেশ সেরা এক ঝাঁক ক্ষুদে গানরাজ। গানগুলোতে বতর্মান সমাজের বিভিন্ন অনিয়ম, রাস্তাঘাটে চলাফেরা বিভিন্ন অসংগতি ও তুলে ধরা হয়েছে।বিশেষ করে শিক্ষক ও ছাত্র ছাত্রীদের সম্পর্ক কেমন থাকা উচিত বিষয়টি গানের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। ভিকারুন্নেসা নূন স্কুলের ছাত্রী অরিত্রি অধিকারীকে উৎসর্গ করে নির্মিত হয়েছে শিক্ষাগুরু এই গানটি।
“আমরা টোকাই “পথ শিশুদের নিয়ে গান আমরা টোকাই চমৎকার একটি গান, কিভাবে আমাদের দেশের পথ শিশুদের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে এবং তারা অশিক্ষায়, অনাহারে দিন কাটাচ্ছে সেই চিত্র ফুটে উঠেছে এই গানটিতে।
মা মায়ের প্রতি ভালোবাসা সন্তানের থাকবে কিন্তু সে ভালো সেটা কেমন সেটি তুলে ধরা হয়েছে” জনম দুঃখী মা” গানের মাধ্যমে। আজকাল ঢাকা শহরের ফুটপাতে হাঁটা যায় না। জনসাধারণের চলাচলের জন্য ফুটপাত হলেও ফুটপাত থাকে হকার ও ভাসমান লোকদের দখলে এ “ফুটপাত তুমি কার”এই গানের মাধ্যমে ফুটপাতের অনিয়মগুলো তুলে ধরা হয়েছে।” নারী কোন নারী এ কেমন নারী ” নারীদের নিয়ে কমেডি ধাঁচের চমৎকার একটি গান তৈরি হয়েছে।
ছেলেমেয়েরা ব্যস্ত হাই-হ্যালো নিয়া” আজকাল ছেলে মেয়েরা মোবাইল চ্যাটিং, ফেসবুক- ইন্টারনেট নিয়ে বেশিরভাগ সময় ব্যস্ত থাকে,আত্মীয়-স্বজন ভাই-বোন কারো কোন খোঁজ খবর তারা রাখতে পারে না মোবাইল চ্যাটিং এ বেশিরভাগ সময় ব্যয় করার কারণে এ চমৎকার গানটির মাধ্যমে বতর্মান চিত্র ফুটে উঠেছে।
এই গান দুইটির কোরিওগ্রাফি করেছেন নিত্য শিল্পী ইউসুফ খান ও তার দল। সবগুলো গানের কথা লিখেছেন মোঃ জাহাঙ্গীর আলম। সুর করেছেন যথাক্রমে আল আমিন খান, জাহিদ রিপন ও এস রুহুল।
কন্ঠ দিয়েছেন : জাহিদ রিপন, ফারহানা নিপা, আশা, ঐক্য জিৎ, মেহেক, সেঁজুতি, শ্রাবন্তী, নোলক ও উদয় পাগলা বাউল সহ আরো অনেকে ।
ইতিপূর্বে প্রতিষ্ঠানটির স্বত্তাধিকারী মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম তার প্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐতিহ্যবাহী জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়কে নিয়ে গান লিখেছেন। তিনি একাধারে নাট্যকার ও অভিনেতা হিসেবেও কাজ করে চলেছেন।
ইতিমধ্যে তার প্রায় ২১ টি গান তৈরি হয়ে সম্পাদনার টেবিলে যা প্রচার এর অপেক্ষায় রয়েছে। এরমধ্যে মিডিয়াকর্মীদের কর্মকাণ্ড নিয়ে একটি চমৎকার গানও রচনা করেছেন। উক্ত গান গুলো বর্তমান সময়ের জন্য যুগ উপযোগী বলে মনে করছেন জাহাঙ্গীর আলম।
রোমান রায়