সিনেমা মুক্তির আগেই না ফেরার দেশে ছোট্ট রাহুল

নিজের অভিনীত সিনেমাটি হলে মুক্তি দেখে যেতে পারল না ভারতের গুজরাটের রাহুল কোলি। কথা ছিল, পরিবার নিয়ে প্রেক্ষাগৃহে সিনেমাটি দেখতে যাবেন। তা আর হলো না, একাই চলে গেলেন না ফেরার দেশে। অস্কারের ৯৫তম আসরে ভারত থেকে মনোনীত সিনেমা ছিল ‘ছেল্লো শো’ ইংরেজিতে ‘লাস্ট ফিল্ম শো’। নামের মতো সিনেমাটিও হয়ে রইল কিশোর অভিনেতার ‘শেষ’ সিনেমা। ২ অক্টোবর  ১০ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন রাহুল। লিউকেমিয়ার সঙ্গে লড়াই করছিল এই খুদে অভিনেতা। ‘ছেল্লো শো’ সিনেমাটিতে রাহুল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় অভিনয় করেছে। চিকিৎসকেরা জানান, লিউকেমিয়া ক্যানসারে আক্রান্ত ছিল রাহুল। চার মাস ধরে চিকিৎসাধীন ছিল। রাহুলের বাবা রামু কোলি পেশায় একজন অটোচালক। তিনি জানান, সকালে নাশতা করার পর রাহুলের জ্বর আসে। এ সময় রাহুল কয়েকবার রক্তবমিও করে। এরপর সে মারা যায়। রাহুলের পরিবার তার জন্মস্থান গুজরাটের হাপা গ্রামে তার জন্য প্রার্থনা সভার আয়োজন করেছে। ১৪ অক্টোবর ‘ছেল্লো শো’ সিনেমাটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এই সিনেমাতে ছয়জন শিশুশিল্পী অভিনয় করেছে, তাদের মধ্যে রাহুল একজন। সিনেমার প্রধান চরিত্র সময়ের বন্ধু মনুর চরিত্রে অভিনয় করেছে রাহুল। সিনেমাটি নিয়ে রাহুল খুবই উচ্ছ্বসিত ছিল। রাহুল প্রায়ই তার বাবাকে বলত, এই সিনেমা মুক্তির পর তাদের জীবন বদলে যাবে। রামু কোলি বলেন, ‘আমরা পুরো পরিবার সিনেমা মুক্তির দিন একসঙ্গে এই সিনেমা দেখব। কারণ, ছেলে যে এই সিনেমাতেই আছে।’ তিন ভাইবোনের মধ্যে রাহুল সবার বড়। তাদের পরিবার ছিল খুবই দরিদ্র। কিন্তু রাহুলের স্বপ্ন তাদেরও স্বপ্ন। রাহুলের চিকিৎসার জন্য তার বাবা আয়ের একমাত্র উৎস অটোরিকশাটিও বিক্রি করে দিয়েছিলেন। তবে এই সিনেমার কলাকুশলী এটি জানতে পেরে তার অটোরিকশাটি ফিরিয়ে এনেছিলেন। আগামী বছর ১২ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে একাডেমি পুরস্কার অস্কারের ৯৫তম আসর। ২০২৩ সালের এই আয়োজনে ‘আন্তর্জাতিক ফিচার ফিল্ম’ বিভাগে ভারত থেকে প্রতিযোগিতা করবে প্যান নলিন পরিচালিত ‘ছেল্লো শো’ সিনেমাটি। প্যান নলিন বলেন, ‘তার মৃত্যুর সংবাদ সিনেমা-সংশ্লিষ্ট আমাদের সবার জন্যই অত্যন্ত দুঃখজনক। আমরা কয়েক সপ্তাহ ধরে তার দেখাশোনা করছি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাকে বাঁচানো গেল না।’

মোহাম্মদ তারেক