শেখ ফজলুল হক মনির জন্মদিনে জানাই বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি

শেখ ফজলুল হক মনি। আফ্র-এশিয়ার অবিসংবাদিত যুবনেতা। যুব সমাজকে দেশ ও জনগণের কল্যানে পরিচালিত করার উদ্দেশ্যে তিনিই ১৯৭২ সালের ১১ নভেম্বর, এ দেশে গড়ে তুলেছিলেন আদর্শ ভিত্তিক যুব সংগঠন “বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ”। মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি ছিলেন “বাংলাদেশ লিবারেশন ফাইটারস” বাহিনীর সংগঠক। অসম্ভব ধী শক্তি সম্পন্ন একজন সাংবাদিক। বাংলার বানী গ্রুপ অফ পাবলিকেশন্স এ স্টাফ রিপোর্টার হিসেবে কাজ করার সময় প্রবীণদের কাছে শুনেছি, একই সঙ্গে বাংলা এবং ইংরেজীতে দুটি বিষয় নিয়ে সম্পাদকীয় লিখতেন তিনি। অসাধারন সেই লেখা আমি পড়েছি। পড়েছি তাঁর লেখা বেশকটি ছোটগল্প। শিশুদের জন্য ছিলো তাঁর আলাদা নিয়মিত পত্রিকা। ছিলো শিশু কিশোরদের জন্য সংগঠন। প্রকাশ করেছিলেন চলচ্চিত্র ও সংস্কৃতি বিষয়ক পত্রিকা ‘সাপ্তাহিক সিনেমা’। ঢাকা নবকুমার স্কুল থেকে ১৯৫৬ সালে এস.এস.সি, ১৯৫৮ সালে জগন্নাথ কলেজ থেকে এইচ.এস.সি, ১৯৬০ সালে বরিশাল ব্রজমোহন কলেজ থেকে বি.এ. এবং ১৯৬২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় এম.এ. এবং আইনে ডিগ্রি লাভ করেন শেখ ফজলুল হক মনি। ছাত্রজীবন থেকেই সরাসরি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত শেখ ফজলুল হক মনি, ১৯৬০-১৯৬৩ সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৬২ সালে হামুদুর রহমান শিক্ষা কমিশন রিপোর্টের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য তিনি গ্রেফতার হন এবং ছয় মাস কারাভোগ করেন। ১৯৬৪ সালের এপ্রিল মাসে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর ও পূর্ব পাকিস্তানের তৎকালীন গভর্নর আবদুল মোনেম খানের নিকট থেকে সনদপত্র গ্রহণে তিনি অস্বীকৃতি জানান এবং সরকারের গণবিরোধী শিক্ষানীতির প্রতিবাদে সমাবর্তন বর্জন আন্দোলনে নেতৃত্ব দেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তার ডিগ্রি প্রত্যাহার করে নেয়। পরবর্তী সময়ে তিনি মামলায় জয়লাভ করে ডিগ্রি ফিরে পান। ১৯৬৫ সালে তিনি পাকিস্তান নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার হন এবং দেড় বছর কারাভোগ করেন। ১৯৬৬ সালে ছয়দফা আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালনের দায়ে তার বিরুদ্ধে হুলিয়া জারি হয় এবং তিনি কারারুদ্ধ হন। এ সময় বিভিন্ন অভিযোগে তার বিরুদ্ধে আটটি মামলা দায়ের করা হয়। ১৯৬৯ সালের গণআন্দোলনের সময় তাকে মুক্তি দেয়া হয়। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ইতিহাসের জঘন্যতম হত্যাকাণ্ডে তাঁকে এবং তাঁর স্ত্রী বেগম আরজু মনিকেও হত্যা করে ঘাতকেরা। শেখ ফজলুল হক মনি ১৯৩৯ সালের ৪ ডিসেম্বর গোপালগঞ্জ জেলায় শেখ পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। বিনম্র শ্রদ্ধাঞ্জলি এই মহান যুব নেতার প্রতি।
মুজতবা সউদ