শান্তা ইসলামের ‘লাইফ ইজ বিউটিফুল’

দেশের প্রাজ্ঞ – গুণী ও জনপ্রিয় অভিনেত্রী – নির্মাতা ও উপস্থাপক শান্তা ইসলাম বিগত কয়েক বছর ধরে টক শো অনুষ্ঠান নির্মাণ ও উপস্থাপনা নিয়ে বেশ ব্যস্ত আছেন। একের পর এক তিনি টেলিভিশন টক শো নির্মাণ উপস্থাপনার পর নতুন আরেকটু অনুষ্ঠান নিয়ে আসছেন আরটিভির পর্দায়। অনুষ্ঠানের নাম ‘সিটি আলো লাইফ ইজ বিউটিফুল’। এই প্রতিবেদককে শান্তা ইসলাম জানান, ৩ অক্টোবর থেকে প্রতি রোববার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় অনুষ্ঠানটি আরটিভিতে প্রচার শুরু হবে। প্রথম পর্বে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে থাকবেন মডেল ও অভিনেত্রী লাক্স তারকা জাকিয়া বারী মম। অনুষ্ঠান সম্পর্কে শান্তা ইসলাম জানান, অনুষ্ঠানটির টাইটেল সং করেছেন সংগীত পরিচালক ইমন সাহা। অনুষ্ঠানটির ধরন সম্পর্কে তিনি বলেন, সবাই স্বপ্ন দেখে, কিন্তু স্বপ্নের পথটি ধরে সবাই হাঁটতে পারে না। যে ক’জন পারে, তারা কেমন করেই বা স্বপ্নের পথ পাড়ি দিতে পারেন – এই কনসেপ্ট নিয়ে স্বপ্নের পথে পাড়ি দেওয়া মানুষদের ঈর্ষণীয় সাফল্যের গল্প কথায় কথায় ওঠে আসবে এই অনুষ্ঠানে। অর্থাৎ পঁচিশ মিনিট ব্যাপ্তির এই টক শোতে সমাজের নানা শ্রেণী – পেশার সফল মানুষদের সাকসেস স্টোরি বা তাদের সফল হওয়ার গল্প বলা হবে। লাইফ ইজ বিউটিফুল এর ট্যাগ লাইন হলো – সফলতার গল্প, ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প। শান্তা ইসলাম আরও জানান, এই অনুষ্ঠানের শুরুর পর্ব থেকেই উপস্থাপক হিসেবে তিনি নিজের ডিজাইন করা পোশাক পরবেন। এভাবেই তিনি শুরু করছেন তার ডিজাইনার ক্লদিং লাইন। দেশের বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শান্তা ইসলামের সর্বশেষ নির্মাণ ও উপস্হাপনায় ‘ধ্রুপদী কাহিনী’ প্রচার হয়েছে আরটিভিতে। করোনাকালের আগে স্পন্সর জনিত জটিলতায় প্রায় ৪০০ পর্ব প্রচারের পর বন্ধ হয়ে যায় অনুষ্ঠানটি। এর পাশাপাশি মাছরাঙ্গা টেলিভিশনে শান্তা ইসলাম নির্মিত ফ্যাশন ও বিউটি রিলেটেড প্রোগ্রাম ‘অসাধারণ’ ১০ ধরে বছর প্রচার হয়েছে। সাময়িক বিরতির পর এবং করোনাকালের স্পন্সর জটিলতা শেষে খুব শীঘ্রি অনুষ্ঠানটির পুনরায় প্রচার শুরু হবে। এর আগে যুগলবন্দী, চারদেয়াল অনুষ্ঠানগুলো নির্মান ও উপস্থাপনা করেছেন শান্তা ইসলাম। অনুষ্ঠানগুলো আরটিভিতে প্রচার হয়েছে। শান্তা ইসলাম এই প্রতিবেদককে বলেন, উল্লিখিত টকশোগুলো নির্মাণের আগে আমি ২৬ টি প্যাকেজ নাটক /টেলিফিল্ম রচনা ও পরিচালনা করেছি। আমার রচনা ও পরিচালনায় নির্মিত প্যাকেজ নাটকে রিয়াজ ও পূর্নিমা জুটিবদ্ধ হয়ে প্রথম অভিনয় করেন। তাদের অভিনীত ঈদের ওই প্যাকেজ নাটকের নাম ছিল ‘ওগো বধু সুন্দরী’। একটা সময় শান্তা ইসলাম নাটক নির্মাণে বিরতি নেন। কিন্তু কেন ? এই বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, তখন আমার আমার একমাত্র ছেলে সৌমিক স্কুল ছাত্র। নাটক বানিয়ে বা অভিনয় করা নিয়ে বেশি ব্যস্ত হয়ে পরতে হয়। তখন ছেলেকে ঠিকমতো সময় দিতে পারছিলাম না। তাই নাটক নির্মাণ ও অভিনয় থেকে নিজেকে সরিয়ে নেই। তখন থেকেই ধীরে ধীরে টেলিভিশন চ্যানেলের জন্যে টকশো নির্মাণ শুরু করি। এতে করে নিজের সময়টাকে নিজের ইচ্ছেমতোই ব্যবহার করতে পারছি। টক শো নির্মাণ এবং উপস্থাপনায় আগ্রহী আর ব্যস্ত হওয়া প্রসঙ্গে শান্তা ইসলাম বলেন, টকশোতে বিভিন্ন আঙ্গিকের সেলিব্রিটিদের খুব কাছে থেকে জানা বুঝা, প্রশ্নোত্তরের তাৎক্ষনিক মুহুর্তগুলি ইন্টারেষ্টিং – এটা আমি খুবই উপভোগ করি। আমার অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের সুন্দর – শোভন মুল্যায়নে আমি কখনোই কোন কার্পন্য করিনা, বরং এই দিকটায় আমার খুব সজাগ দৃষ্টি থাকে তাদের আরও বেশি আলোকিত করতে। আর আমি জীবনটাকে খুব ইতিবাচক দেখতেই বেশি পছন্দ করি, ভালোবাসি।
রোমান রায়