চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি থেকে সদস্যপদ স্থগিত করা হলো চিত্রনায়িকা পরীমনির

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি থেকে চিত্রনায়িকা পরীমণির সদস্যপদ স্থগিত করা হয়েছে। আজ শনিবার, ৭ আগস্ট বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের জহির রায়হান কালার ল্যাবের অডিটোরিয়ামে সংবাদ সম্মেলন করে বিষয়টি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর, সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান ও নির্বাহী সদস্যবৃন্দ। সংবাদ সম্মেলনে সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর বলেন, পরীমণির ঘটনাটি আমাদের চলচ্চিত্র তথা শিল্পী সমাজের জন্য বিব্রতকর। আমরা কোনো অন্যায়কে প্রশ্রয় দিই না। এছাড়া পরীর বিষয়টির মামলা চলমান। এ নিয়ে কোনো মন্তব্য করা ঠিক না। আমরা তাই পরীমণির সদস্যপদ স্থগিত করেছি। আজ কেবিনেট মিটিংয়ে সব সদস্যের মতামতের মাধ্যমে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।
এর আগে গত ৪ আগস্ট পরীমণিকে তার বনানীর বাসা থেকে আটক করে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। তিনি শিল্পী সমিতির একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। বিভিন্ন সময়ে শিল্পী সমিতিকে নানাভাবে সহায়তা করেছেন তিনি। কিন্তু পরীমণির এ ঘটনায় নীরব ভূমিকায় সংগঠনটি। এ প্রসঙ্গে গণমাধ্যমকর্মীরা সমিতির অবস্থান জানতে চাইলে সার্বিক বিষয় পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে বলে জানান সংগঠনের নেতারা। তারা বলেন, ‘সমিতির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, এ ঘটনায় পরীমণির সদস্যপদ স্থগিত হতে পারে।’
প্রসঙ্গত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির গঠনতন্ত্রের ৬-এর ‘খ’ ও ৯-এর ‘গ’ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, কোনো সদস্য যদি সমিতির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে কোনো কাজে লিপ্ত হন সঙ্গে সঙ্গে তার সদস্যপদ সাময়িকভাবে স্থগিত হবে। তবে আদালতে তিনি নির্দোষ প্রমাণিত হলে সদস্যপদ ফিরে পাবেন। যদি দোষী সাব্যস্ত হন, সেক্ষেত্রে আজীবনের জন্য চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সদস্যপদ হারাবেন। ২০১৫ সালে ‘ভালোবাসা সীমাহীন’ সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্রে যাত্রা করেন পরীমণি। এরপর তিনি প্রায় ৩০টির মতো সিনেমায় অভিনয় করেছেন।
রোমান রায়