বিটিভির ঈদের চার নাটক

ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে চারটি বিশেষ নাটক নির্মাণ করেছে বাংলাদেশ টেলিভিশন। বিটিভির অনুষ্ঠান বিভাগ জানিয়েছে, ঈদের আগের দিন রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর প্রচারিত হবে নাটক ‘ফুফুর ঈদ’। ফজলুল করিমের রচনায় এটি প্রযোজনা করেছেন শাহ জামান মিয়া। অভিনয় করেছেন দিলারা জামান, মাহমুদ সাজ্জাদ, মিলি বাশার, আল মামুন, মুনিরা মেমি, রওনক হাসান ও মিম চৌধুরী। নাটকে দেখা যাবে- তাহমিনা ছাত্রজীবনে সাহেদকে ভালবাসে। ঈদের উপহার হিসেবে সাহেদ তাহমিনাকে একটি শাড়ি উপহার দেয় কিন্তু উপহার দিয়ে যাওয়ার সময় রাজাকার সাহেদকে মেরে ফেলে সেই থেকে তাহমিনা ঈদের দিন কোনো নতুন কাপড় পরে না। নানা ঘটনায় তাহমিনার জীবন অতিবাহিত হয়। মাসুম রেজার রচনা এবং ঈমাম হোসাইনের প্রযোজনায় ঈদের দিন রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর প্রচারিত হবে বিশেষ নাটক ‘শূন্য ঘরে পূর্ণ জীবন’। অভিনয় করেছেন আনিসুল ইসলাম, ফারহানা মিলি, আফজাল শরীফ, সাবেরী আলম, জিয়ায়ুল হাসান কিসলু, শিরিন আলম, ডাঃ এজাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, সুষমা সরকার, ডেভোরা সিলভিয়া সহ আরো অনেকে। ঈদের ২য় দিন রাত ১০টা ইংরেজি সংবাদের পর প্রচারিত হবে নাটক ‘বিবাহ বিভ্রাট’। রেজাউর রহমান ইজাজের রচনায় এটি প্রযোজনা করেছেন আবু তৌহিদ। নাটকে দেখা যাবে- টেলিফোনে বিয়ের দিন এখন আর নেই। অনলাইনই এখন টেলিফোনের জায়গা দখল করে নিয়েছে। আত্মীয় পরিজন নিয়ে পাত্র-পাত্রীরা অনলাইনে হাজির হচ্ছেন। কাজীও যুক্ত হচ্ছেন অনলাইনে। তারপর কলেমা পড়ে বিয়েটা হয়ে যাচ্ছে। এখন করোনাকাল। তাই বলে কি বিয়ে থেমে থাকছে? কিন্তু সমস্যা হচ্ছে অনলাইনে গোপন বলে আর কোনো কিছু থাকছে না। যা অনেক সময় সৃষ্টি করছে বিভ্রাটের। এই নাটকে অভিনয় করেছেন ইমতু রাতিশ, নাদিয়া, মনিরা মিঠু, ঝুনা চৌধুরী, আব্দুল্লাহ রানা, স্বপ্না বেগম, মাসুদুজ্জামান, হাফিজুর রহমান সুরুজ, রফিকুল্লাহ সেলিম, ডেভোরা কুইয়া, তারিকুজ্জামান তপন, কাজী আল আমিন, মনিকা।
মাতিয়া বানু শুকুর রচনায় এবং মাহবুবা ফেরদৌসের প্রযোজনায় নাটক ‘আহ্লাদে আটখানা’ প্রচারিত হবে ঈদের ৩য় দিন রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর। নাটকটিতে অভিনয় করেছেন সাজু খাদেম, উর্মিলা শ্রাবন্তী কর, মাসুম বাসার, শিল্পী সরকার অপু, রিমি করিম, আলমগীর কবির, মনোয়ার হোসেন, কাজী শামসুর রহমানসহ আরও অনেকে। নাটকে দেখা যাবে-তিন মেয়ে নিয়ে আকবর সাহেবের সংসার। আকবর সাহেব প্রচন্ড রাগি মানুষ। তার সামনে মুখফুটে কোনো কথা বলতে পারেনা তার মেয়েরা, এমনকি স্ত্রী মনিরাও ভয় পান তাকে। এই সংসারে আকবর সাহেব যা সিদ্ধান্ত নেবেন তাই ফাইনাল। তার বড়ো দুই মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন নিজে পছন্দ করে। কিন্তু কোথাও একটা ভুল হয়েছে, দুটো মেয়ের কেউই বিশেষ সুখি হয়নি সংসারে। এবারে পালা ছোট মেয়ে নায়লার। এ বেলায় এসে আকবর সাহেব নিরব। তিনি ছোট মেয়ের জন্য কোন পাত্রই দেখছেন না। এদিকে বাবার ভয়ে নায়লা এ পর্যন্ত কারো সাথেই প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়নি নিজেকে। তাহলে এখন কি হবে? এই মেয়ের বিয়ে হবে কার সাথে?
রোমান রায়