নয়াদিল্লীতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে ভারত বাংলাদেশ দু’দেশের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের যৌথ অনুষ্ঠান পালিত হচ্ছে সীমিত আকারে। নয়াদিল্লীতে সম্মিলিত শহীদ মিনারে একুশের প্রথম প্রহরেই প্রভাতফেরি এবং পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে ১৯৫২-এর ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানান বাংলাদেশ হাইকমিশন। এসময় জাতীয় পতাকা অর্ধনিমিত রেখে ভাষা শহীদদের জন্য বিদেহী আশীর্বাদ কামনা করে একটি বিশেষ প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও শহীদের স্মরণে এক মিনিটের নীরবতা পালন করেন তারা।
হাই কমিশনার মুহাম্মদ ইমরান নেতৃত্বে প্রভাতফেরিতে অংশ নিয়েছিলেন মিশনের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও পরিবারের সদস্যরা। একুশে ফেব্রুয়ারির কার্যক্রম শেষ করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা-জ্ঞাপন করেন হাই কমিশনার ও অফিসাররা। নয়াদিল্লীতে বাংলাদেশ হাইকমিশনের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন শেষে মুহাম্মদ ইমরান তার বক্তৃতায় তিনি ১৯৫২ সালের ভাষা শহীদদের ত্যাগের কথা স্মরণ করেন এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধা জানান। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রচেষ্টায় ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসাবে ঘোষণা করে।
আলমগীর কবির