তোরসা নাকি মিয়ামি ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-১৯’ বিজয়ী ছিলেন?

২০১৯ সালের ১১ অক্টোবর রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে জমকালো আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছিল মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৯/২০ এর গ্র্যান্ড ফিনালে। সেবছর নিজের মেধা,বুদ্ধি ও সৌন্দর্য্য দিয়ে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৯/২০’ বিজয়ী মুকুট মাথায় তোলেন চট্টগ্রামের মেয়ে রাহাহ্ নানজীবা তোরসা। এবং রাফাহ্ নানজীবা তোরসা ঐ বছরেই ১৪ ডিসেম্বর লন্ডনের এক্সেল এরেনায় মিস ওয়ার্ড-এর ৬৯ তম আসরের মূল মঞ্চে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন। এ’কথা সবারই জানা।কিন্তু বর্তমানে সোস্যাল মিডিয়াতে কিছু জায়গায় দেখা যাচ্ছে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ তোরসার জায়গায় মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৯/২০ এর প্রথম রানার আপ ফাতিহা খুলদ মিয়ামির নাম! ফাতিহা খুলদ মিয়ামি বিভিন্ন অনলাইন প্রোগ্রামগুলোতে অতিথি হয়ে যাচ্ছেন সেখানে পোস্টারে তাঁর নামে পাশে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ লেখাটা দেখা যাচ্ছে।টেলিভিশন চ্যানেলের সাক্ষাৎকারেও তাকে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ আখ্যায়িত করা হচ্ছে। বিষয়টি সোস্যাল মিডিয়াতে ও জনমনে একপ্রকার তথ্য বিভ্রাট হচ্ছে। যার ধরুন অনেকেই দ্বিধান্বিত বিষয়টি নিয়ে।আসলে প্রকৃত ব্যাপারটা কি?
এনিয়ে প্রথমে মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৯/২০ এর প্রথম রানার আপ ফাতিহা খুলদ মিয়ামির সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘দেখুন আসলে এই বিষয়ে আমি কি বলবো? যাদেরকে এতোবার করে বলার পরও তারা ভুলটা সংশোধন করে নিচ্ছেন না,তাহলে আমি আর কি করতে পারি? আমি কিন্তু কখনো কোথাও বলি নাই বা লিখি নাই যে আমি ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’।কেউ সেটা কখনোই বলতে পারবে না।আমি তাদেরকে বারবার বলার পরও যদি এই ভুলটা করে,আমার আর কি করার আছে। আমার আরেকটা দুঃখ আজ পর্যন্ত অনেকেই ঠিক মতো আমার নামটাও লিখতে পারেনা।আমি সেই ভুলটাও বলার পর সংশোধন করে নিতে পারছিনা।তারা অনেকে হয়তো আমার ফেসবুক আইডি থেকে দেখে আমার সঠিক নামটা ভুল করে।সেই একই জায়গাও আমি বলে বলে অনেক জায়গায় ভুলটা আর শোধরাতে পারিনি।আসলে এখানে আমার ইচ্ছাকৃত কোনো ব্যাপার নয়।কেউ যদি এই ভুলটা করে,এবং আমার বলা সত্ত্বেও সেই ভুলটা বহাল থাকে।এখানে তো আমার কোনো হাত নেই। আর আমি কেন জেনেশুনে এই ভুলটা করবো! আর আমি কেনইবা ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ টাইটেল ব্যবহার করবো! কারণ আমার তো নিজস্ব একটা টাইটেল আছে।আমি ‘মিস বাংলাদেশ এফ ও বি আই’।তাহলে কেনো শুধু শুধু এই ভুলটা আমি করবো? এটা রাফাহ্ নানজীবা তোরসা অর্জন করেছে।অতএব,এটা তোরসার ব্যবহার করার অধিকার।আমি সকলের কাছে অনুরোধ করবো এটা নিয়ে কেউ কোনো ভুল বুঝাবুঝি তৈরি না করে।’
এবিষয়টি মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৯/২০ খেতাব জয়ী রাফাহ্ নানজীবা তোরসার কাছে জানতে চাইলে,তিনি বলেন, ‘হুম বিষয়টা আমারও নজরে এসেছে।এবং অনেকেই আমাকে এটা নিয়ে বলেছে। এখন এটা নিয়ে আমি আর কি বলবো,যা বলার বা করার মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ আয়োজক কর্তৃপক্ষ বলতে পারেন।তবে আমি একটা কথা বলবো আমি এই অর্জন আমার যোগ্যতা মেধা আর পরিশ্রম দ্বারা অর্জন করেছি।আমার আগে যারা এটা অর্জন করেছেন ও আগামীতে যারা করবেন অবশ্যই তারা তাদের মেধা আর যোগ্যতাই দিয়েই।তাই কেউ এটার অপব্যবহার না করুক সেটা কাম্য। তাহলে জনগণ বিভ্রান্তি হবেন না।’
এদিকে এবিষয়ে জানার জন্য ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’-এর আয়োজক কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করতে বারবার ফোন দেওয়া হলেও ফোন রিসিভ করেনি।
রোমান রায়