মিডিয়াতে আর কাজ করবেন না সুজানা জাফর

১৬ বছরের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে মিডিয়াতে অসংখ্য কাজ করেছেন জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী সুজানা জাফর। নাটক টেলিফিল্মে অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি বিজ্ঞাপনে এবং মিউজিক ভিডিও’তে কাজ করেছেন। বেশ কয়েক বছর যাবৎ তিনি সামাজিক কর্মকাণ্ডে নিজে জড়িত রেখেছেন এবং তিনি ছোটবেলা থেকেই নিয়মিত নামাজ রোজা পালন করছেন। পাশাপাশি নিজের বুটিক্স ব্যবসা নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন।তাই তাঁর ভক্ত দর্শকরা অনেক দিন থেকেই মিডিয়াতে তাঁর নতুন কোনো কাজ দেখতে পাচ্ছেন না। এরইমাঝে আসলো এক নতুন খবর।না ভক্তদের জন্য কোনো সুখবর নয়। মিডিয়াকে বিদায় জানালেন জনপ্রিয় এই মডেল অভিনেত্রী! ভক্তরা হঠাৎ করে এমন খবরে হতাশা হলেও,এই অভিনেত্রী মনে মনে আগেই ঠিক করে রেখেছেন তিনি আর মিডিয়াতে কাজ করবেন না। মিডিয়াকে বিদায় জানানো নিয়ে গণমাধ্যম’কে এই অভিনেত্রী বলেন,’৩ বছর আগে বুটিক্স ব্যবসায় নামি, তখনই ঠিক ধীরে ধীরে নিজেকে মিডিয়া থেকে গুটিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নেই। সেজন্য বছরে দু একটি কাজ করেছি। এর বাইরে ব্যবসায় মনোযোগ দিয়েছি। পাশাপাশি কিছু আশ্রম ও অসহায় মানুষদের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। ২০১৮ সালের নভেম্বরে ওমরাহ্‌ হজ পালনের পর মিডিয়া থেকে মন আরও সরে যায়। গত তিনবছরে দুএকটি কাজ করতে গিয়ে দেখেছি, মিডিয়া অনেক পরিবর্তন হয়ে গেছে। সত্যি কথা বলতে প্রথমদিকে কাজের যেমন পরিবেশ ছিল এখন তেমনটা পাইনি। অন্যের কথা বলে তো আমার লাভ নেই, আমার কাছে এখন মিডিয়া জায়গাটা কমফোর্টেবল না। উপলব্ধি হলো, মিডিয়া আর আমার জন্য না। যেখানে ট্যালেন্টের মূল্য কম সেখান থেকে আমি সরে আসতে চেয়েছি। বুটিক্স ব্যবসায় মানুষের কাছ থেকে অনেক রেসপেক্ট পেয়েছি।’
মিডিয়াকে বিদায় জানানোর পর কোনো আক্ষেপ কাজ করবে কি না? জানতে চাইলে তিনি বলেন,’ছোটবেলা থেকেই নামাজ আদায় করতাম, কোরআন পড়তাম। এটা হয়তো অনেকের অজানা ছিল। করোনায় গত তিনমাসে হোম কোয়ারেন্টাইনে থেকে আমি কোরআন, হাদিস থেকে অনেক বেশি জ্ঞান নিয়েছি। সেসব জ্ঞান থেকে আমার মনে হয়েছে মিডিয়াতে আমার কাজ করা ঠিক না এবং মন থেকে কাজের উদ্দীপনা আসছে না। গত ৩ মাসে কোরআন, হাদিস থেকে যা শিখেছি সেখান থেকে আমি বেশি শান্তি পেয়েছি, যা আগে কখনই পাইনি। মিডিয়া ছাড়ার জন্য কেউ আমাকে বাধ্য করেনি। আমার মন থেকে মিডিয়ায় কাজের ইচ্ছে নষ্ট হয়ে গেছে। তাই আমি মিডিয়াতে আর কাজ করবো না। এবং তারজন্য আমার মনে কোনো আক্ষেপ কাজ করবে না।’
মিডিয়ায় কোনো তিক্ত অভিজ্ঞতা আছে কি না? জানতে চাইলে তিনি বলেন,’১৬ বছর আগে যোগ্যতা দিয়ে কষ্ট করে যেভাবে কাজ হতো এখন ওই জিনিসটা আর দেখিনা। মানুষে মানুষে যোগাযোগ তো থাকবেই। কিন্তু এখন যোগাযোগ ও যোগ্যতার চেয়ে মানুষের সঙ্গে ব্যক্তিগত রিলেশন প্রাধান্য পাচ্ছে। যার সাথে যার রিলেশন তার সাথেই কাজে বেশি দেখা যায়। এটা একতরফা লাগে। এটা নিয়ে আসলে বেশি কথা বলা ঠিক হবে না। শুধু এটুকুই জানাই আগে যে পরিবেশ ছিল এখন সেই পরিবেশ পাইনা।’
মিডিয়ায় কাজ না করে শুধুমাত্র বুটিক্স ব্যবসা দিয়ে টিকে থাকতে কষ্টকর হবে না?
আমি যাদের সাথে ব্যবসা করি তারা কিন্তু কেউ মিডিয়ার না। তারা যদি ঠিকভাবে সার্ভাইভ করতে পারে আমি কেন পারবো না? আমি মনে করি, লাইফে যার চাহিদা কম তার কোনোকিছুতে সমস্যা হওয়ার কথা না। আমার অনেক উচ্চাকাঙ্ক্ষা নেই।
ভক্তদের কি মিস করবেন? এই প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘আমি মিডিয়া থেকে সরে আসলেও ভক্তদের সাথে আমার ঠিকই যোগাযোগ থাকবে।তাই আমি মনে করি না যে ভক্তরা আমার কাছ থেকে কিংবা আমি তাদের কাছ থেকে দূরে সরে থাকবো। বছর দুয়েক আগে ‘হঠাৎ’ নামে একটি মিউজিক ভিডিও এবং কমাস আগে ‘থেকো মেঘ হয়ে’ নামে একটি নাটকে কাজ করেছিলাম। অনেকদিন আমি কাজ থেকে দূরে। যারা আমাকে সত্যিকার ভালোবাসে তারা আমার ফেসবুক হ্যাকড হওয়ার পরেও নতুন আইডি খুঁজে নিয়েছে। ফ্যানপেজ, ইনস্টাগ্রামে ফলো করে। কাজ থেকে দূরে থেকে আমি এখন যেভাবে চলি ফ্যানরা আমাকে মেসেজ দিয়ে জানায়, এভাবেই আমাকে বেশি ভালো লাগে, তারা ভীষণ শ্রদ্ধা জানায়। আমার বিশ্বাস আগামীতেও তারা অন্য সুজানা হিসেবে সম্মান করে যাবে। গত ৬ বছর যাবৎ প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করছি। আগামিতে অসহায় মানুষদের নিয়ে আমি কাজ করে যাবো। আমি যেভাবে সমাজসেবা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি মিডিয়ার বা সামর্থ্যবান মানুষগুলোও যেন এগিয়ে আসে।’
রোমান রায়