‘ঢ্যাঁড়শ’ স্বাস্থ্য গুন সমৃদ্ধ ও পুষ্টি গুনে ভরপুর

এই মুহূর্তে আমফান ঝড় বিধ্বস্ত সবজি বাজারে সবচেয়ে যে সবুজ সবজি টি সবথেকে বেশি পাওয়া যাচ্ছে তাহল ‘ঢ্যাঁড়শ’। নামটা শুনলে কচি থেকে বৃদ্ধ অনেকেই বিরক্ত হয়ে যান। আবার যাদের ঢ্যাঁড়শ বলে সম্বোধন করা হয় তারাও খুব রেগে যান নিজের অক্ষমতা প্রকাশ হয়ে যায় বলে। আসলে ঢ্যাঁড়শ সবজি টি কিন্তু দেখতে যেমন আকর্ষণীয়, সবজি হিসেবে ও স্বাস্থ্য গুন সমৃদ্ধ। তাই মনে হয় ইংরেজি নামকরন টাও সুন্দর-লেডিস ফিঙ্গার। সুদূর আফ্রিকা থেকে এসে পরা এই সবজি ভারতের সবজি বাজারে সহজলভ্য, তার সাথে সকলেরই পছন্দের। সবজি গুন বিচারে এই ছিপছিপে, সবুজ একরোখা সবজি টি তালিকার ওপরেই জায়গা করে নেবে। আসলে খেতে একটু লতলতে, হড়কে যাওয়ার মতো ব্যাপারটা বলে অনেকের মুখে তুলতে না পসন্দ। কিন্তু, তেলে ভেজে, অথবা, সর্ষে বাটা দিয়ে ঢ্যাঁড়শ স্বাদে অতুলনীয়। ঢ্যাঁড়শ নাম টার সাথে কোনো গুন নেই ভাবনা টা জড়িয়ে থাকে। আদতে তা নয়। পুষ্টি গুনে ভরপুর ঢ্যাঁড়শ কে বদনাম করা যাবে না। ভাজা, ভর্তা, নানা তরকারী তে ঢ্যাঁড়শ উপাদেয়। ঢ্যাঁড়শের আ্যন্টিঅক্সিডেন্ট দেহকোষে র মিউটেশন রোধ করে, ক্ষতি করে ফ্রি রাডিক্যল দূর করে। নিয়মিত ঢ্যাঁড়শ খাওয়া ক্যান্সারের আশঙ্কা কমায়। ঢ্যাঁড়শ দেহে লোহিত রক্তকণিকা র উৎপাদনে সাহায্য করে এবং, রক্তাল্পতা দূর করে।
গর্ভধারণের নানা সমস্যা কমাতে ও গর্ভকালীন সময়ে শিশু র নিউরাল টিউবে জটিলতা দূর করতে ঢ্যাঁড়শ কার্যকরী ভূমিকা নেয়। এতে থাকা ভিটামিন সি, এ আ্যজমা রোগীদের নিয়মিত খাওয়া উচিত, তাতে, শ্বাস কষ্ট কমতে থাকে। ঢ্যাঁড়শ এ রয়েছে সলিউবল ফাইবার, পেকটিন যা অন্ত্রে র ফোলা ভাব কমায় এবং অন্ত্র থেকে বর্জ্য পরিস্কার করে। তাই দীর্ঘদিন যারা কোষ্ঠকাঠিন্য এর সমস্যায় জর্জরিত, তারা নিয়মিত ভাতের সাথে ঢ্যাঁড়শ সেদ্ধ খেতে পারেন। ঢ্যাঁড়শ ইনসুলিনের মতো উপাদান এ সমৃদ্ধ, তাই নিয়মিত ভক্ষণে রক্তে সুগারের মাত্রা কমে। ঢ্যাঁড়শে ভিটামিন এ, সি, ক্যলশিয়াম, ম্যগনেশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ থাকে, যা, শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, ফলে নানা ধরনের ছোটো খাটো ভাইরাস ও ব্যকটেরিয়া জনিত রোগ দূরে থাকে। বৃদ্ধ বয়সে একটি কমন সমস্যা হলো অস্টিওপোরোসিস, বিশেষত, মহিলা দের। এছাড়াও, শরীরের বিভিন্ন অস্থিসন্ধি তে ব্যাথা এই সমস্যা কে দূরে রাখতে দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় ঢ্যাঁড়শ এর একটা তরকারি রাখুন, কারন, ফোলেট সমৃদ্ধ ঢ্যাঁড়শ হাড়ের গঠন মজবুত করে, এবং ক্ষয় প্রতি রোধে সাহায্য করে।
এছাড়াও ঢ্যাঁড়শ এ আছে, ভিটামিন এ, দুটি বিটা ক্যারোটিন, যা আমাদের দৃষ্টি শক্তি কে উন্নত করে, চোখে গ্লোকমা,ছানি র কষ্ট থেকে সাময়িক রক্ষা করে। অনেকেই আছেন ঢ্যাঁড়শ কে সুস্বাদু করে তৈরি করতে অত্যন্ত পারদর্শী। পরিবারের কোনো সদস্য ঢ্যাঁড়শ এ বিরক্তি প্রকাশ করলে তাকে ঢ্যাঁড়শ এর নানা রকমারি খাবার খাইয়ে ভালো বাসা জাগিয়ে তুলতে পারেন।
গোপাল দেবনাথ, কলকাতা