মোল্লা জালালের কথা-সুরে ঈদের গানে ইবরার টিপু, সাব্বির ও বিন্দুকনা

বিভিন্ন সময়ে ঈদ নিয়ে বিভিন্ন গীতিকার ঈদের গান লিখেছেন। তবে কোন গানই আমাদের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের লেখা ‘ও মন রমজানের ঐ রোজার শেষে এলো খুশির ঈদ, তুই আপনাকে আজ বিলিয়ে দে, শোন আসমানী তাগিদ ’ গানকে আজ অবধি ছাপিয়ে যেতে পারেনি। রোজার ঈদ এলেই মুহূর্তে সারা বাংলাদেশে এই গানের প্রতিধ্বনিত হতে থাকে। এই গানই যেন সবার মধ্যে এক আনন্দের বন্যা বইয়ে দেয়। সুর সম্রাট আব্বাস উদ্দীনের অনুরোধেই কাজী নজরুল ইসলাম এই গানটি লিখেছিলেন। তারপরও ঈদকে নিয়ে গীতিকারদের মধ্যে গান সৃষ্টির চেষ্টা চলতেই থাকে। সেই ধারাবাহিকতায় এবার যুক্ত হলেন বিএফইউজে সভাপতি মোল্লা জালাল। ঈদকে ঘিরে তিনি লিখেছেন ‘ওই দেখ আকাশে খুশীতে চাঁদ হাসে’। গানটির সুর করেছেন মোল্লা জালাল নিজেই। মেধাবী সুরকার, সঙ্গীত পরিচালক ইবরার টিপুর সঙ্গীতায়োজনে গানটিতে কন্ঠ দিয়েছেন ইবরার টিপু, সাব্বির জামাল ও বিন্দুকনা। লকডাউনের এই দিনগুলোর মধ্যেই গানটি বেশ যত্ন নিয়ে রেকর্ডিং করা হয়েছে বলে জানা যায়। গানটি নিয়ে ভীষণ আশাবাদী গানটির গীতিকার মোল্লা জালাল। আগামী ঈদে গানটি দেশের বিভিন্ন চ্যানেলে, রেডিও, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইউটিউবে গানটি শ্রোতা দর্শকেরা শুনতে পাবেন। গানটি প্রসঙ্গে বিন্দুকনা বলেন,‘ ঈদকে নিয়ে গান জীবনে এবারই প্রথম করেছি। গানের কথাগুলো ভীষণ ভালোলেগেছে আমার। সুরটাও অসাধারণ। ইবরার টিপু যেহেতু বাসাতেই নিজ স্টুডিওতে এর সঙ্গীতায়োজন করেছেন, তাই আমি নিজে দেখেছি কতোটা শ্রম দিয়ে তিনি গানটি করেছেন। আমরা তিনজনেই আমাদের সর্বোচ্চ আন্তরিকতা দিয়ে গানটি গেয়েছি। আমার বিশ^াস গানটি শ্রোতা দর্শকের ভীষণ ভালোলাগবে এবং গানটি দেশের আনাচে কানাচে ছড়িয়ে পড়বে। কারণ এই গানের সুর সঙ্গীতে এক অন্যরকম দ্যোতনা আছে যা শ্রোতা দর্শককে মুগ্ধ করবে। ধন্যবাদ মোল্লা জালাল ভাইকে আমাদেরকে এমন একটি গানের সাথে সম্পৃক্ত রাখার জন্য। এই গানটিতে থাকতে পারা একটি ইতিহাসের সাথে থাকার মতোই আমার কাছে মনে হয়। ’
রোমান রায়