রমজান মাসে অসহায় পরিবারগুলোর পাশে মুক্তি

করোনার ভাইরাসের প্রভাবে বিশ্ববাসী আজ চরম আতংকে দিন কাটাচ্ছেন। এই রোগের এখনও কোনো সুনির্দিষ্ট চিকিৎসা বের হয়নি। প্রতিদিনই বাড়ছে রোগীর সংখ্যা,এবং সে সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃতের সংখ্যা।বাংলাদেশেও করোনার প্রভাব বেশ ভালো ভাবেই পড়েছে।পৃথিবী জুড়ে দেশে দেশে এখন চলছে লকডাউন। চলমান করোনা মহামারীতে বাংলাদেশের অসহায় মানুষদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন দেশীয় শোবিজ জগতের অনেক তারকা। তারা ব্যক্তিগত উদ্যোগে যতটা পারছেন অসহায়দের সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। এবার সে কাতারে নাম লেখালেন একাধিকবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাওয়া গুণী অভিনেত্রী আনোয়ারার মেয়ে চলচ্চিত্র ও টিভি অভিনেত্রী মুক্তি।অভিনেত্রী মুক্তি নিজ উদ্যোগে এবং তার একটি গ্রুপের সহযোগিতায় গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে ত্রাণ বিতরণ শুরু করেছেন।
করোনার কারণে বেকার হয়ে যাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষদের জন্যে এই রমজান উপলক্ষে মুক্তি এবং তার একটি গ্রুপ সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। অভিনেত্রী মুক্তি জানান, তিনি দক্ষিণ বনশ্রী, রামপুরা এবং খিলগাঁও এলাকার শতাধিক পরিবারকে গতকাল খাদ্য সামগ্রী প্রদান করেছেন। রমজান উপলক্ষে দেওয়া তাদের এই খাদ্য সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে পাঁচ কেজি চাল, দুই কেজি আটা, দুই কেজি আলু, দুই কেজি পেঁয়াজ, এক কেজি মসুরের ডাল, এক কেজি ছোলা, এক কেজি চিনি, এক কেজি লবণ, এক কেজি তেল ও একটি সাবান।
মুক্তি আরো জানান, খাদ্য সামগ্রীর বাইরে তারা দূরের বেশ কয়েকজনকে আর্থিক সহযোগিতাও প্রদান করেছেন।
অভিনেত্রী মুক্তি এই প্রসঙ্গে বলেন, করোনাতে দেশে লকডাউন শুরু হওয়ার পর অনেকেই সহযোগিতা করছেন নিম্ন আয়ের অসহায় মানুষদের। কিন্তু এই রমজানে এদের প্রয়োজনটা অনেক বেশি। তাই আমি এই সময়টায় আমি এবং আমার গ্রুপের অন্যরা সাধ্য মতো এদের পাশে থাকার চেষ্টা করছি। এই কাজে আমাকে সার্বিক তত্ত্বাবধান করছেন আরিফ রাব্বানী এবং আমার মেয়ে কারিমা। আমাদের গ্রুপের অন্য সদস্যরা হলেন হাসি কবির, মিনু আরা স্মৃতি, শরীফ রাব্বানী, মিম সানজানা ও জয়া। আমরা চেষ্টা করবো প্রতিদিনই আমাদের ক্ষুদ্র সামর্থ্যের মধ্য দিয়ে এই রমজানে কিছু অসহায় পরিবারের মানুষদের মুখে হাসি ফোটাতে।
রোমান রায়