বর্ণিল আয়োজনে শিল্পী সমিতির বনভোজন

জমকালো আয়োজনে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পীদের বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত। গাজীপুরের মেঘবাড়িতে বসেছিল দেশের রুপালি জগতের তারাদের মেলা। গতকাল শনিবার সকাল থেকেই চলচ্চিত্রাঙ্গনের তারকাদের উপস্থিতিতে মুখরিত হয়ে উঠে মেঘবাড়ি। সকাল ৮টায় বিএফডিসি থেকে গাজীপুরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে চলচ্চিত্র অভিনয়শিল্পী ও আমন্ত্রিত অতিথিরা। আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে ছিলেন-চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক, নৃত্য পরিচালক, সাংবাদিক, টেকনিশিয়ানসহ চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট লোকজন।
মেঘবাড়িতে আগে থেকেই অবস্থান করেছিলেন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান। এ সময় অতিথিদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান তারা। ঢাকাই চলচ্চিত্রের প্রবীণ-নবীনসহ প্রায় ছয়শত শিল্পী একত্রিত হয়েছেন সেখানে। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পীদের সংগঠন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির বার্ষিক বনভোজন উপলক্ষে একত্রিত হয়েছেন এসব তারকারা। প্রিয় সহকর্মী, বন্ধুদের একসঙ্গে পেয়ে উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠেন সবাই। শুরু হয় কুশল বিনিময়, খেলাধুলা, আড্ডা ও গান। প্রতিবারের মতো এবারও বনভোজনকে কেন্দ্র করে ছিল নানা আয়োজন ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। উপস্থিত ছিলেন গাজীপুরের মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম ও এশিয়ান টিভির চেয়ারম্যান হারুন অর রশীদ।
বনভোজনে অংশ নেয়া প্রবীণ তারকাদের মধ্যে ছিলেন চিত্রনায়ক ফারুক, সোহেল রানা, ডিপজল, রুবেল, আলেকজান্ডার বো, উজ্বল, জাবেদ, রিনা খান, আমিন খান, অনন্ত জলিল, বর্ষা, শাহনূর, কেয়া, বাপ্পারাজ, আফজাল শরীফ, অপু বিশ্বাস, পলি, সম্রাট, বিদ্যা সিনহা মীম, কমল, মৌমিতা মৌ, জয় চৌধুরী, শিপন মিত্র, নাদিম, তানহা মৌমাছি, শাকিবা, সনি রহমান, অভি, সাইফ খান, শিরিন শিলা, আন্না, আইরিন সুলতানা, রাহা তানহা খান, আনিসুর রহমান মিলন, নতূন, বাপ্পি চৌধুরী, আঁচল, দীঘি, জলি, বিপাশা, ইমন, নীড়, পুষ্পিতা পপি, দিপালী, আসিফ, মারুফ আকিব, শৈলী মান্না, সুব্রত, রতন, মৃদুলা রেসি, আরশি ও অমৃতাসহ অনেকে। গান গেয়ে অনুষ্ঠান মাতান কন্ঠশিল্পী আসিফ আকবার, বাঁধন সরকার পূজা, প্রতীক হাসান, বেলাল খান, রবি চৌধুরী, মম, আয়েশা মৌসুমীসহ আরও অনেকে। এদিন সন্ধ্যায় সবচেয়ে আকর্ষণীয় ছিলো তারকাদের মনমাতানো নাচের অংশ। প্রথমেই তিন তারকা আঁচল, বিপাশা, রোমানা নেচে মঞ্চ কাঁপিয়ে দেন। এরপরে রেসি ও জয় তাদের পারফরমেন্স দিয়ে দর্শকদের মাঝে আলোড়ন তুলে দেন। এরপর মৌমিতা মৌ- আশিক চৌধুরী তাদের নাচ নিয়ে এলে চারিদিকে দর্শকদের করতালি পড়ে যায়।একে একে আরশি,অভি-তানহা মৌমাছি এদের মনমুগ্ধকর পারফরমেন্স সবার বেশ ভালো লাগে। তবে অনুষ্ঠানে সবচেয়ে আকর্ষণীয় নাচ ছিলো শিল্পী সমিতির সভাপতি বলিষ্ঠ অভিনেতা মিশা সওদাগর ও জনপ্রিয় নায়িকা রেসির নাচের অংশ। তাদের দুজনের পারফরমেন্স দেখে মঞ্চে উপস্থিত সকলেই করতালি দিয়ে অভিবাদন জানান। অনুষ্ঠানের শেষে দৃষ্টি নন্দন আতশবাজি পুড়িয়ে এবং মুজিব শতবর্ষকে সম্মান জানিয়ে মঞ্চে সকল শিল্পী সমিতির সদস্যরা জাতীয় সংগীত পরিবেশ করে এই অনুষ্ঠানের সমাপনী ঘোষণা করেন।
রোমান রায়