সংগীতের ৫০ বছর নিয়ে বলবে দ্য রিদম অব বাংলাদেশ-২

চলচ্চিত্র শিল্প, টেলিভিশন, মঞ্চনাট্যাঙ্গন নিয়ে নানা রকম বইপত্র প্রকাশিত হলেও বাংলাদেশের আধুনিক সংগীত নিয়ে তেমন কোনো বই বা গ্রন্থ প্রকাশিত হয়নি এখনো। অথচ ঐতিহ্যের বৈচিত্র্যে ভরা আমাদের সংগীতাঙ্গন। গত ৫০ বছরে তা আরো সমৃদ্ধ হয়েছে। আর যারা এই সমৃদ্ধিকে দিনে দিনে এক সাম্রাজ্যে পরিণত করেছেন তাদেরই কথাই তুলে আনা হচ্ছে দ্য রিদম অব বাংলাদেশ ভলিউম ২-এ। লিখেছেন খালেদ আহমেদ
‘দ্য রিদম অব বাংলাদেশ ভলিউম-২’ দেশের ঐতিহ্যবাহী সংগীতাঙ্গন এবং এই অঙ্গনের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের কর্মজীবন ভিত্তিক একটি পূর্ণাঙ্গ গ্রন্থ (বায়োগ্রাফি)। এটি একইসঙ্গে প্রিন্ট সংস্করণ ও অনলাইন ভার্সনে প্রকাশিত হবে। এর সম্পাদক এনাম সরকার বলেন, ‘২০০১ সালে দ্য রিদম অব বাংলাদেশ ফটোগ্রাফি (আধুনিক সংগীত) সংস্করণটি প্রকাশিত হয়। যা দেশের সংগীতাঙ্গনকে ব্যাপক আকৃষ্ট করে এবং প্রশংসিত হয় বাংলাদেশের মিডিয়ায়। তখনই গ্রন্থটির ভূমিকাতে উল্লেখ্য করা ছিল—রিদম অব বাংলাদেশ এর দ্বিতীয় পর্বে আধুনিক সংগীতশিল্পী, গীতিকার, সুরকার এবং সংগীত নিয়ে যারা দেশের বিভিন্ন মাধ্যমে কাজ করে গেছেন, এখনো করছেন, রেখেছেন নানামুখী অবদান তাদেরই কর্মজীবন তুলে আনা হবে। সেই প্রতিশ্রুতি রক্ষার জন্যই প্রায় ২০ বছর পর ‘দ্য রিদম অব বাংলাদেশ ভলিউম ২’ বাজারে আনার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে কালচারাল জার্নালিস্টস ফোরাম অব বাংলাদেশ। ১৯৭০ থেকে ২০২০ (৫০ বছর)। এই সময়ের গান গাওয়া, লেখা, সুরারোপ এবং বেতার, টেলিভিশন, চলচ্চিত্র, মঞ্চ ও অডিওশিল্প মাধ্যমে বাংলা সংগীতকে যারা স্বকীয়তায় সমৃদ্ধ করেছেন তাদের কর্মময় জীবনই এখানে প্রাধান্য পাচ্ছে। সিজেএফবি’র একটি প্রতিবেদক সদস্য দল ‘দ্য রিদম অব বাংলাদেশ ভলিউম ২’-এর ডাটা সংগ্রহ এবং নিবন্ধনের কাজ শুরু করে ২০০৫ সালে। এই প্রতিবেদক তালিকায় রয়েছেন সাংবাদিক রাসেল আজাদ বিদ্যুত্, কামরুজ্জামান মাসুম, নীহার আহমেদ, সোহেল অটল, এনামুল হক এবং আলমগীর কবির। এছাড়াও আরো কয়েকজন সাংবাদিক অতিথি প্রতিবেদকের দায়িত্বে রয়েছেন। যারা সমগ্র অডিও ইন্ডাষ্ট্রির ইতিহাস তুলে আনতে নিরন্তর সহযোগিতা করেছেন। বর্তমানে এই গ্রন্থ সম্পাদনার কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। আকাশবাড়ী কমিউনিকেশন্স’র ব্যানারে সমগ্র বাংলাদেশ এবং অনলাইনের মাধ্যমে বিশ্ব বাজারে একযোগে প্রকাশ করা হবে ‘দ্য রিদম অব বাংলাদেশ ভলিউম ২’। এবারের পর্বে সংগীত বিভাগ বা এই অঙ্গন নিয়ে জাতীয় সংবাদপত্র এবং বিভিন্ন গণমাধ্যমে যারা সাংবাদিকতা করেছেন তাদের কর্মজীবন এবং অবদানও সংযোজন করা হবে। অন্যসব কিছুর মতো সংগীতব্যক্তিত্বসহ সংগীতের নানা কর্মকাণ্ডের সাক্ষী হয়ে রয়েছেন আমাদের সাংবাদিক সমাজের বড় একটি অংশ এবং সংবাদ মাধ্যম। সব মিলে এটি হবে বাংলাদেশের প্রথম সংগীতভিত্তিক একটি আর্কাইভ প্লাটফর্ম। পরবর্তীকালে দ্য রিদম অব বাংলাদেশ ‘অনলাইন নিউজ পোর্টাল’র রূপ ধারণ করবে। যেখানে এই গ্রন্থের সকল রের্কড আজীবনের জন্য সংরক্ষণ করা হবে। অত্যন্ত ব্যয়বহুল এবং সৃজনশীল এই প্রকল্পটি বাংলাদেশের সংগীত-সংস্কৃতির এক অনন্য ইতিহাস হয়ে থাকবে বলে প্রত্যাশা করি আমি’। উল্লেখ্য, বিগত দুই যুগেরও বেশি সময় সাংবাদিকতা পেশায় যুক্ত এনাম সরকার। ১৯৯৬-এর শেষদিকে দৈনিক জনকণ্ঠ দিয়ে তার শুরু। এরপর দৈনিক ইত্তেফাক, বাংলা বাজার, আজকের কাগজ, সাপ্তাহিক পূর্ণিমা, পাক্ষিক শৈলী সহ একাধিক সংবাদপত্রের ফিচার বিভাগ ও সাহিত্য সাময়িকী এবং বিনোদন বিভাগে লেখালেখি করেন। সর্বশেষ দৈনিক ইনকিলাবে সিনিয়র রিপোর্টার হিসেবে যোগ দেন। একজন সংগঠক হিসেবেও নিজের শক্ত অবস্থান তৈরি করতে সফল হয়েছেন এনাম সরকার। সাংস্কৃতিক সাংবাদিকদের সবচেয়ে বড় এবং আধুনিক সংগঠন ‘কারচারাল জার্নালিস্টস ফোরম অব বাংলাদেশ (সিজেএফবি)’র চারবারের নির্বাচিত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন সাফল্যের সাথে। বর্তমানে সিজেএফবি’র প্রধান উপদেষ্টার পদে রয়েছেন।
রোমান রায়