বছরের আলোচিত সেরা পাঁচ অভিনেতা

২০১৯ সালটা চলচ্চিত্রের সকলের জন্য এক বিষাদময় ছিলো। কাজের সংকট,সাফল্যের দেখা নেই বললেই চলে, উল্লেখযোগ্য কোনো কাজেই নেই তেমন কারো। তবুও এই সংকটময় পরিস্থিতিতেও নিজ কাজ আর সাফল্য দেখিয়ে কিছুটা হলেও আলোকিত করেছেন এই বছরটা। এই বছরের আলোচিত পাঁচজন সেরা অভিনেতার নাম পাঠকদের কাছে তুলে ধরলো বিনোদন বিচিত্রাঃ-
শাকিব খানঃ দীর্ঘ কয়েক বছর যাবৎ নিজের আধিপত্য ধরে রেখেছেন ঢালিউডের শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। ২০১৯ সালটাও নামের পাশে সফলতার তকমা ঠিকই নিয়ে নিয়েছেন। চারিদিকে এতো এতো ব্যর্থতার মাঝে শাকিব খান নিজের সাফল্য ঠিকই অর্জন করে নিয়েছেন। ২০১৯ সালের সেরা ব্যবসা সফল ছবি তাঁর অভিনীত এবং তাঁর প্রযোজনার ‘পাসওয়ার্ড’। এছাড়াও এই বছর তাঁর অন্য দুটি মুক্তি পাওয়া ছবি ‘নোলক’ ও ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ সফলতা অর্জন করেছে। শুধু সিনেমা ব্যবসা সফলতা দিয়ে নয়।এই বছর নানা ভাবে তিনি ছিলেন আলোচনার শীর্ষে। বেশকিছু ঘটনার জন্যও তাকে বারেবার শিরোনামে আসতে হয়েছে।একসাথে তাঁর প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এসকে প্রোডাকশন থেকে একসাথে চারটি সিনেমা নির্মাণের ঘোষণা দিয়ে চারিদিকে হৈচৈ ফেলে দেন। তাঁর অভিনীত বহুল আলোচিত কাঙ্খিত ছবি ‘শাহেনশাহ’- এর জন্য তাঁর ভক্তরা বছরজুড়েই ছিলেন অপেক্ষায়। নতুন নায়িকা জাহারা মিতুকে নিয়ে নতুন সিনেমা ‘আগুন’ শুরু হলেও মাঝ পথে থেমে আছে।এটা নিয়ে অনেক আলোচনার জন্ম নেয়। রাজউকের নকশা না মেনে বাড়ি বানানোর অভিযোগে রাজউক তাকে ১০ লক্ষ টাকা জরিমানা করে।এটা নিয়ে মিডিয়াতে বেশ আলোচনা হয়। দেশের মাটিতে স্টেজ শো করার পাশাপাশি এই প্রথম বলিউডের বাদশাহ খ্যাত নায়ক শাহরুখ খানের রেড চিলিজ এন্টারটেইনমেন্টের আমন্ত্রণে আবুধাবিতে ‘টি-টেন’ ক্রিকেট লিগের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পারফরমেন্স করে আলোচিত হোন। বুবলীর সাথে জুটি ভেঙে যাচ্ছে এমন শিরোনামে চারিদিকে যখন খবর রটে যাচ্ছে,ঠিক সেই মুহূর্তে বুবলীর সাথে নতুন সিনেমা ‘বীর’ শুটিং শুরু করে আলোচনার সুর অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেন। ২০১৭ সালের ‘সত্তা’ সিনেমার জন্য চতুর্থবারের মতো পান জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। সাফল্য আর কাজের ব্যস্ততা এবং নানা ঘটনায় তাকে এই বছর রেখেছেন আলোচনার শীর্ষে।
সিয়াম আহমেদঃ খুব অল্প সময়ে নিজের কাজ দিয়ে দর্শক গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করে চলচ্চিত্রে শীর্ষ নায়কের স্থানে নিজে প্রতিষ্ঠিত করে নিয়েছেন। ২০১৯ সালে তাঁর অভিনীত একটি মাত্র চলচ্চিত্র মুক্তি পায়।তৌকীর আহমেদ পরিচালিত তিশার বিপরীতে ভাষা আন্দোলনের ছবি ‘ফাগুন হাওয়ায়’। ছবিটি দর্শকনন্দিত হওয়ার পাশাপাশি সিয়াম আহমেদের অভিনয়ে সকলের কাছে বেশ প্রশংসা পান। বর্তমানে তাঁর হাতে নায়কদের মাঝে সর্বাধিক সিনেমা। মুক্তির অপেক্ষায় থাকা নাট্যকার চয়নিকা চৌধুরীর প্রথম চলচ্চিত্র এবং পরীমনি’র সাথে প্রথমবার জুটি বেঁধে ‘বিশ্বসুন্দরী’ ছবিটি ছিলো বছরজুড়েই আলোচনার কেন্দ্র-বিন্দু’তে।’বিশ্বসুন্দরী’ ছাড়াও তাঁর হাতে থাকা সিনেমাগুলো হচ্ছে-‘অপারেশন সুন্দরবন’,’পাপ-পূণ্য’,’শান’,’ইত্তেফাক’,’স্বপ্নবাজি’।এই ছবিগুলোর জন্য সারাবছরই সংবাদ মাধ্যমগুলোসহ সোস্যাল মিডিয়াতে তুমুল আলোচনায় ছিলেন সিয়াম আহমেদ। এছাড়া মেহাজাবিনের সাথে বাংলালিংক এর বিজ্ঞাপনে কাজ করেও বেশ আলোচিত হোন। অভিনয়ের পাশাপাশি নিজের আইনিপেশায় চাকরি শুরু করেছেন এবং নিকাহ স্কোয়াড নামে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট ব্যবসা শুরু করেছেন তিনি। ২০১৮ সালের ‘পোড়ামন-২’ ও ‘দহন’ দুই সফল সিনেমার জন্য এই বছর তাঁর হাতে উঠেছে বাচসাস চলচ্চিত্র পুরস্কার,মেরিল-প্রথমআলো পুরস্কার এবং ভারত-বাংলাদেশ ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড পুরস্কার। তাই সিয়াম আহমেদের ২০১৯ সালটি ছিলো এক আলোচিত এবং ব্যস্ততময় বছর।
আরিফিন শুভঃ অভিনয় জীবনে ২০১৭ সালের ‘ঢাকা অ্যাটাক’ সিনেমার জন্য সেরা অভিনেতা হিসেবে প্রথমবারের মতো পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এই বছর তাঁর অভিনীত একটি চলচ্চিত্র মুক্তি পায়।’সাপলুডু’ নামক চলচ্চিত্র মোটামুটি সফল হলেও নির্মাণ আর অভিনয় শিল্পীদের অভিনয়ের জন্য বেশ আলোচিত হয় ছবিটি। তাঁর অভিনীত আরেকটি চলচ্চিত্র মুক্তি পায় ওপার বাংলায়।ঋতুপর্ণার বিপরীতে কলকাতার সিনেমা ‘আহা রে’ দিয়ে কলকাতায় বেশ সাড়া ফেলে দেন তিনি। কলকাতায় ছবিটি বেশ আলোচিত এবং শুভ’র অভিনয় প্রশংসিত হয়।অভিনয়ের দক্ষতা বাড়াতে সুদূর আমেরিকা’তে অভিনয়ের উপর একটি কোর্স সম্পন্ন করেন।এবং সেখানে অ্যামাজান প্রাইমের যুক্তরাষ্ট্রের একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘হলি অ্যান্ড মলি’-তে অভিনয় করেন। ২০২০ সালে ঈদে মুক্তির প্রতীক্ষায় থাকা সিনেমা ‘মিশন এক্সট্রিম’ দিয়ে ছিলেন আলোচনার তুঙ্গে। ২০১৯ সালটা ছিলো আরিফিন শুভ’র জন্য আলোচিত একটা বছর।
সাইমন সাদিকঃ ২০১২ সালে জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত ‘জ্বী হুজুর’ দিয়ে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু করেন। সেই থেকে সাফল্য আর ব্যর্থতা নিয়ে দর্শকদের ভালোবাসা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন জনপ্রিয় অভিনেতা সাইমন সাদিক। এই বছর তাঁর কোনো সিনেমা মুক্তি না পেলেও,এই বছর তাঁর সবচেয়ে বড় সাফল্য হলো ২০১৮ সালের ‘জান্নাত’ সিনেমায় অনবদ্য অভিনয় করার জন্য রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মাননা জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন। এটাই ছিলো এই বছর তাঁর সবচেয়ে বড় সাফল্য। ‘জান্নাত’ ছবির জন্য বিদেশের মাটিতে বিভিন্ন উৎসবে যোগদান করেছেন এবং পুরস্কৃত হয়েছেন। বর্তমানে তিনি মাহিয়া মাহি’র সাথে ‘আনন্দ অশ্রু’ ছবির শুটিং নিয়ে ব্যস্ত আছেন।
নিরবঃ ২০১৯ সালটা ছিলো নিরবের জন্য এক স্মরণীয় এবং সফলতার। এই বছরে তাঁর আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র ‘বাংলাশিয়া’ ছবিটি মালয়েশিয়ায় মুক্তি পায়।মুক্তি পাওয়া সাথে চারিদিকে বেশ সাড়া ফেলে দেয় এবং তাঁর এই চলচ্চিত্রটি মালয়েশিয়াতে রের্কড সংখ্যক ব্যবসা সফল হয়। বাংলাদেশে তাঁর অভিনীত একমাত্র সিনেমা ‘আব্বাস’ সেটিও ব্যবসা সফলতা অর্জন করে। এভাবে যখন বছরটা সফলভাবে পার করছেন,ঠিক বছরের শেষ ভাগে এসে শীর্ষ নায়িকা বুবলীর সাথে জুটি হয়ে ক্যাসিনো’তে কাজ করাটা বেশী আলোচিত করেছে।তাছাড়াও এই বেশ কয়েকটি নতুন চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন।তাই বলা যায় ২০১৯ সালটা ছিলো নিরবের জন্য সাফল্যের।
রোমান রায়