হলগুলোতে দর্শক টানছে ‘ন ডরাই’

মুক্তি নিয়ে সকল জটিলতা কাটিয়ে শেষ পর্যন্ত ২৯ নভেম্বর দেশের ৮ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় তানিম রহমান অংশু পরিচালিত ‘ন ডরাই’। মুক্তির দিন থেকে গতকাল দুইদিনে ছবিটি দেখতে দর্শক হুমড়ি খেয়ে পড়েন রাজধানীর স্টার সিনেপ্লেক্সের তিনটি শাখাসহ বাকি যে হলগুলোতে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে। প্রতিটি সিনেমা হল থেকে দর্শকদের অভূতপূর্ব সাড়া পাচ্ছে ‘ন ডরাই’। এ বিষয়ে স্টার সিনেপ্লেক্সের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ বিনোদন বিচিত্রা’কে বলেন, মুক্তি দিন থেকে গতকাল পর্যন্ত দুইদিনে প্রতিটি শো’তেই ছবিটি দেখতে হুমড়ি খেয়ে পড়েন দর্শক। প্রথম দিনসহ গতকালও স্টার সিনেপ্লেক্সের তিনটি শাখাতেই বিকাল ও সন্ধ্যার শোগুলো পুরো হাউজফুল ছিলো। আমরা দর্শকদের কাছ থেকে এটা সাড়া পাবো ভাবতে পারিনি।তারা ছবিটা দেখতে আমাদের প্রতিটি সিনেপ্লেক্সসহ বাকী হলগুলোতেও ভীষণ ভীড় করছেন।তাই বলতে পারি আমরা ‘ন ডরাই’ সিনেমাটি নিয়ে শতভাগ সফল হয়েছি। আগামী সপ্তাহ থেকে আরো হল সংখ্যা বাড়বে।এবং আমরা সেই তালিকাটা শিগগিরই প্রকাশ করবো।
বসুন্ধরা স্টার সিনেপ্লেক্স, সীমান্ত স্কয়ারের স্টার সিনেপ্লেক্স ও মহাখালি এসকে টাওয়ারে অবস্থিত সিনেপ্লেক্স-এ শুধু নয়, বাকি যে হলগুলো ছবিটি মুক্তি পেয়েছে সবগুলো থেকেই ইতিবাচক সাড়া পেয়েছেন বলে জানান তিনি।
সেন্সর বোর্ডের আপত্তি থাকায় ২৯ নভেম্বর ‘ন ডরাই’-এর মুক্তি নিয়ে আশঙ্কা তৈরী হয়। আর এ কারণে প্রযোজক পরিবেশক সমিতিতে ছবিটি মুক্তির তারিখ নিতে আবেদনও করতে পারেনি এই ছবির প্রযোজক। এদিকে একই তারিখে ছবি মুক্তির অনুমতি নিয়ে নেয় ‘পাসওয়ার্ড’ ও ‘ইন্দুবালা’। যেহেতু উৎসব ছাড়া একই দিনে তিনটি ছবি একসঙ্গে মুক্তির নিয়ম নেই, তাই শেষ পর্যন্ত স্টার সিনেপ্লেক্সের তিনটি শাখা, যমুনা ব্লকবাস্টার, শ্যামলী সিনেমা, চট্টগ্রামের সিলভার স্ক্রিন, ময়মনসিংহের ‘ছায়বাণী’ ও বগুড়ার ‌‘মম ইন’-এ ছবিটি মুক্তি দেয়া হয় ‘ন ডরাই’।
স্টার সিনেপ্লেক্সের প্রথম প্রযোজনায় দেশের প্রথম নারী সার্ফার নাসিমার উঠে আসার বাস্তব গল্প নিয়ে সিনেমা ‘ন ডরাই’। সামাজিক, পারিবারিক প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে সার্ফিংয়ের আইকন হয়ে ওঠার অদম্য জীবনের গল্প আছে এই ছবিতে। ছবির অন্যতম দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন সুনেরাহ বিনতে কামাল ও শরিফুল রাজ।
রোমান রায়