আজ কিংবদন্তি রুনা লায়লার জন্মদিন

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন উপমহাদেশের প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী রুনা লায়লা। দীর্ঘ পাঁচ দশকেরও বেশি সময়ের সংগীত ক্যারিয়ার গুণী এই শিল্পীর। গেয়েছেন ১৮টি ভাষার গান।
আজ ১৭ নভেম্বর উপমহাদেশের প্রথিতযশা এই শিল্পীর ৬৭তম জন্মদিন। দিনটিকে ঘিরে গতকাল সন্ধ্যা থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভক্ত-অনুরাগী ও শুভাকাঙ্খিদের শুভেচ্ছা-শুভকামনায় সিক্ত হচ্ছেন রুনা লায়লা। তবে জন্মদিনটা রুনা লায়লা বরাবরই পারিবারিক আবহে সাদামাটাভাবে পালন করে থাকেন। বরাবরের মতো এবারও পরিবারের সদস্য ও খুব কাছের কয়েকজনের সঙ্গে দিনটি উদযাপন করছেন তিনি। তবে এবারের জন্মদিনের আগে ভক্ত-অনুরাগীদের দুটি আনন্দের খবর দিয়ে কিছুটা উচ্ছ্বসিত তিনি। সেই আনন্দের খবর দুটি হলো- ‘একটি সিনেমার গল্প’ সিনেমার একটি গানের সুরকার হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এবং ১৬ নভেম্বর তার সুর-কণ্ঠে প্রকাশ পেয়েছে ‘ফেরাতে পারিনি’ শিরোনামের নতুন গান-ভিডিও।
রুনা লায়লাগীতিকবি কবির বকুলের লেখা গানটির সংগীতায়োজন করেছেন রাজা কাশেফ। জীবনের বাস্তবতা, প্রাপ্তি আর অপ্রাপ্তির গল্পে প্রোডাকশন হাউজ প্রেক্ষাগৃহের ব্যানারে গানটির ভিডিও নির্মাণ করেছেন শাহরিয়ার পলক। মিউজিক ভিডিওতে নিলয় আলমগীর এবং সালহা খানম নাদিয়ার অনবদ্য অভিনয় ছড়িয়েছে মুগ্ধতা আর রুনা লায়লার উপস্থিতি দিয়েছে পূর্ণতা।
এই গান প্রসঙ্গে রুনা লায়লা বলেন, ‘এটি একটি মেলোডিয়াস ঘরানার, ক্ল্যাসিক্যাল বেইজড গান। আমার বিশ্বাস, এই গান শ্রোতা-দর্শকের মধ্যে অন্যরকম ভালোলাগার সৃষ্টি করবে। গানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাই অনেক শ্রম দিয়ে গানটি করেছি। বড় কথা, গানটির সঙ্গে আমাদের প্রত্যেকের ভালোবাসা জড়িয়ে আছে।’
রুনা লায়লা১৯৫২ সালের এইদিনে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের সিলেটে জন্মগ্রহণ করেন রুনা লায়লা। বাংলাদেশে চলচ্চিত্র, পপ ও আধুনিক সংগীতের জন্য বিখ্যাত তিনি। তবে বাংলাদেশের বাইরে গজলশিল্পী হিসেবে দক্ষিণ এশিয়ার অন্য দেশে তার সুনাম আছে। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার আগে থেকেই তিনি চলচ্চিত্রের গায়িকা হিসেবে কাজ শুরু করেন।
বাংলাদেশ ছাড়াও ভারতীয় এবং পাকিস্তানি চলচ্চিত্রের অনেক গানে কণ্ঠ দিয়েছেন রুনা। বাংলা, উর্দু, পাঞ্জাবি, হিন্দি, গুজরাটি, বেলুচি, পশতু, ফার্সি, আরবি, মালয়, নেপালি, জাপানি, স্পেনিশ, ফরাসি, লাতিন ও ইংরেজি ভাষাসহ মোট ১৮টি ভাষায় ১০ হাজারেরও বেশি গান করেছেন তিনি। পাকিস্তানের পাশাপাশি বাংলাদেশ ও ভারতে তার কণ্ঠের ‘দমাদম মাস্ত কালান্দার’ শীর্ষক গানটি অত্যন্ত জনপ্রিয়।
সংগীত অসামান্য অবদানের জন্য স্বাধীনতা পদক, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার (একাধিকবার), দাদা সাহেব ফালকে সম্মাননাসহ দেশ-বিদেশের বহু আন্তর্জাতিক পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন উপমহাদেশের খ্যাতনামা এই সংগীতশিল্পী।
রোমান রায়