রাস্তার পাশের দোকান থেকে আইসক্রিম খেলেন এরদোগান-পুতিন

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তায়্যিপ এরদোগান ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন রাস্তার পাশের দোকান থেকে আইসক্রিম কিনে খেলেন।
রুশ প্রেসিডেন্ট মঙ্গলবার মস্কো ইন্টারন্যাশনাল অ্যাভিয়েশন অ্যান্ড স্পেস স্যালোন (এমএকেএস ২০১৯) থেকে তুর্কি প্রেসিডেন্টকে আইসক্রিম কিনে খাওয়ান বলে জানিয়েছে স্থানীয় গণমাধ্যম।
ঝুকভস্কি ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে রাশিয়ান অ্যাভিয়েশন হার্ডওয়্যারের একটি রেঞ্জ পরিদর্শনের এক ফাঁকে তারা কাউন্টার থেকে আইসক্রিম বেছে নেন। কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা নারী তাদেরকে জানান, দুটি আইসক্রিমের দাম ২১০ রুবল (রাশিয়ার মুদ্রা)। দুই প্রেসিডেন্টের কে দাম দেবে এ নিয়ে তখন এক আনন্দঘন পরিবেশ সৃষ্টি হয়।
এরদোগান পুতিনকে বলেন, আপনি কি আমার আইসক্রিমের দাম দেবেন? জবাবে পুতিন বলেন, হ্যাঁ, অবশ্যই আমি আপনার আইসক্রিমের দাম দেবো। সর্বোপরি আপনি আমার অতিথি। এ সময় পুতিন এই নারীকে একটি ৫০০০ রুবলের নোট দেন। তার ফিরিয়ে দেয়া অর্থ অ্যাভিয়েশনের উন্নয়নের জন্য রেখে দেন রাশিয়ার শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী ডেনিস মান্টুরভ। এমএকেএসের আইসক্রিম পুতিনের জন্য যেন ঐতিহ্যে পরিণত হয়েছে।
২০১৭ সালেও তাকে এখান থেকে আইসক্রিম কিনতে দেখা যায়। তিনি তার সঙ্গে থাকা কর্মকর্তাদেরকেও আইসক্রিম কিনে দেন। আইসক্রিমকে রাশিয়ার কূটনৈতিক অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করা নতুন কৌশল নয়। চলতি গ্রীষ্মের শুরুতে পুতিন চীনের প্রেসিডেন্ট সি জিনপিংয়ের জন্মদিনে রাশিয়ার আইসক্রিমের একটি বক্স উপহার দেন।
অঞ্জন দাস