সালাওয়া’কে নিয়ে মানিকের শুরু হলো ‘স্বপ্ন দেখা রাজকন্যা’

তরুণ মেধাবী চলচ্চিত্র পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিকের হাত ধরে চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু হলো মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার প্রথম রানারআপ নিশাত নাওয়ার সালওয়ার।”স্বপ্ন দেখা রাজকন্যা” শিরোনামে এই চলচ্চিত্র দিয়েই প্রথমবারের মতো সিনেমায় অভিনয় করতে যাচ্ছেন তিনি।এবং পর্দায় তাঁর বিপরীতে আছেন হ্যান্ডসাম দ্য আল্টিমেট ম্যান দ্বিতীয় আসরের চ্যাম্পিয়ন এ কে আজাদ। এই ছবির প্রাথমিক নাম ছিল ‘রাজকন্যা’ কিন্তু শুটিং শুরু হলো ‘স্বপ্নে দেখা রাজকন্যা’ হিসেবে।এখানে শুধু নামই পরিবর্তন হয়নি, পরিবর্তনে এসেছেন নির্মাতার নামও। রাজু চৌধুরীর পরিচালনা করার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত মোস্তাফিজুর রহমান মানিকই আছেন নির্মাণের দায়িত্বে।নির্মাতা সূত্রে জানা যায়, গত ১২ জুলাই থেকে রাজধানীর উত্তরায় মহরত অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ছবিটির শুটিং শুরু হয়। এতে নায়িকা সালওয়া, নায়ক একে আজাদ-সহ অন্য কলাকুশলীরা অংশ নিয়েছিলেন।সিনেমার কাহিনি লিখেছেন সুদীপ্ত সাইদ খান। প্রযোজনা করেছেন মৌসুমী আক্তার মিথিলা। যৌথভাবে ছবিটির চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন সুদীপ্ত সাইদ খান ও মোস্তাফিজুর রহমান মানিক।
গান লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ। সংগীতায়োজনে থাকবেন প্রমিত রাফাত। ছবির সিনেমাটোগ্রাফার হিসেবে কাজ করছেন এ আর আলম। সম্পাদনা করবেন শহিদুল হক, আলোকচিত্রে রয়েছেন শাহ সুলতান। সাজ-সজ্জায় আছেন সেলিম মোহাম্মদ। এমএস মুভিজের ব্যানারে নির্মিত এ ছবিতে আরও অভিনয় করবেন আলিরাজ, মারুফ আকিব, রেবেকা, মৌসুমী মিথিলা, চিকন আলিসহ আরও অনেকে।
প্রথমবারের মতো চলচ্চিত্রে অভিনয়ের অভিজ্ঞতা জানাতে গিয়ে নিশাত নাওয়ার সালওয়া বলেন, ‘প্রথম ছবি, প্রথম অনুভূতি সত্যিই অন্যরকম। প্রথমবার যখন ক্যামেরার সামনে দাঁড়ালাম শুরুতে একটু নার্ভাস ছিলাম। কিন্তু গুণী পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিক ভাইয়ের পরামর্শ থেকে শুরু করে সব ধরনের সহযোগিতা পাওয়ার পর সেই ভয়টা আর কাজ করেনি। ’
নিজের চরিত্র নিয়ে সালওয়া বলেন, ‘এই সিনেমায় মডার্ন এক মেয়ের চরিত্রে আমাকে দেখা যাবে। প্রেম বিষয়ক নানা জটিলতায় এগিয়ে যায় চরিত্রটি।তিনি নির্মাতা মোস্তাফিজুর রহমান মানিকের ভীষণ প্রশংসা করেন।এবং তাঁর সাথে কাজ করাটা সৌভাগ্যেরও বটে এটা স্বীকার করেন।তিনি আরো বলেন,মানিক ভাইয়ের সিনেমা দিয়েই শাবনূর আপু প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলেন।আমিও আশাবাদী এই সিনেমা দিয়ে ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি ঘটবে।পরিচালকের নির্দেশনা অনুযায়ী আমি আমার চরিত্রটি পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে পারি,তাহলে অবশ্যই ভালো কিছু হবে আশা রাখি।’
একে আজাদ বলেন, ‘এটা আমার প্রথম সিনেমা। অন্যরকম অনুভূতি হচ্ছে। এর আগেও ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছি। কিন্তু সিনেমার ক্যামেরার সামনে এবারই প্রথম। সিনেমার ক্ষেত্রে সবকিছুই ডিফরেন্ট পাচ্ছি। ইউনিটটাও অনেক বড়। প্রি-প্রোডাকশনের কাজও অনেক ভালো হয়েছে। আর মৌলিক গল্পে নির্মিত হচ্ছে ছবিটি। আশা করছি ভালো কিছুই হবে। ’
পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান মানিক বলেন, ১২ জুলাই থেকে শুটিং শুরু করেছি। সালওয়া আজাদ-এরা দুজনই নতুন। তবে তাঁরা অনেক সম্ভাবনাময়।তাঁদেরকে সঠিকভাবে গাইডলাইন দিতে পারলে ভালো কিছু করতে পারবে। ’
এদিকে বৃষ্টির কারণে শুটিং পিছিয়ে দিয়েছেন বলে জানিয়ে মানিক বলেন, ‘ইচ্ছে ছিল টানা কয়েক দিন শুটিং করব। কিন্তু প্রথম দিন শুটিংয়ে গিয়েই বৃষ্টির কবলে পড়ি। ফলে আপাতত শুটিং পিছিয়ে দিয়েছি। ইচ্ছে এই মাসের ২০ তারিখের দিকে আবারও শুটিং শুরু করার। ’
নির্মাতা আরও জানান, ২৫ তারিখ থেকে নড়াইলে টানা দুই সপ্তাহ কাজ চলবে। ছবিতে মোট ৫টি গান থাকছে ইতিমধ্যেই ছবির একটি গান রেকর্ড সম্পন্ন হয়েছে এতে কণ্ঠ দিয়েছেন তরুণ প্রজন্মের আলোচিত সংগীতশিল্পী মৌসুমী মিথিলা ও ইমরান। ছবিটির বেশির ভাগ দৃশ্যধারনের কাজ হবে সিলেট ও নড়াইলে। ঈদের পর সিলেটে দুটি গান শুটিংয়ের মাধ্যমে ছবিটির কাজ শেষ করা হবে বলে জানিয়েছেন পরিচালক। বৃষ্টির বাগড়া দেয়াতে আপাতত শুটিং বন্ধ রয়েছে।
রোমন রায়