নিজের ছবি দেখে নিজেই অবাক

দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। চরিত্রের খাতিরে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন লুকে ধরা দিয়ে দর্শকদের চমক উপহার দিয়েছেন। কিন্তু এবার নিজের লুক দেখে নিজেই অবাক চঞ্চল। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘পদাতিক’ সিনেমার একটি স্থিরচিত্র শেয়ার করে লিখলেন, ‘এটা কি মৃণাল সেন না কি আমি!’ বিস্ময়ের ঘোর কাটছে না দর্শকেরও। তবে নিজেই ব্যাখ্যা দিলেন অভিনেতা। চঞ্চল লেখেন, ‘ছবিটা দেখে প্রথমে আমি নিজেও অবাক হয়ে যাই। এটা কি মৃণাল সেন না কি আমি! সত্যটা বুঝতে একটু সময় লেগেছে, সেই সাথে অনেক খানি ভালোও লেগেছে।’ যার হাতের এমন অসাধারণ কারুকাজে পর্দার মৃণাল সেন হয়ে উঠলেন তার প্রশংসা করতেও ভুললেন না অভিনেতা। রূপসজ্জা শিল্পী সোমনাথ কুণ্ডুর হাতের জাদু আর প্রস্থেটিক মেকআপের সাহায্যে চঞ্চল চৌধুরী হয়ে উঠেছেন মৃণাল সেন। তার কাজকে ‘অসধারণ কাজ’ বলে আখ্যা দিলেন অভিনেতা। চঞ্চল জানালেন, ১৪ মে মৃণাল সেনের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিখ্যাত মার্কিন সাময়িকী ‘ভ্যারাইটি’ এই ছবিটি দিয়ে, তার এবং পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় ও প্রযোজক ফেরদৌসুল হাসান এর একটা ইন্টারভিউ ছেপেছে। গত বছর বাবা রাধা গোবিন্দ চৌধুরীর মৃত্যুর পরপরই চলচ্চিত্রটিতে যুক্ত হন চঞ্চল। জীবনে প্রথমবারের মতো কোনো জীবনীভিত্তিক ছবিতে অভিনয় করছেন; তাও কিংবদন্তি চলচ্চিত্রকার মৃণাল সেনের ভূমিকায়। এমন একটি চ্যালেঞ্জিং চরিত্রে তাকে নির্বাচন করায় কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন ‘পদাতিক’ নির্মাতা সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের প্রতি। এছাড়া ছবিটি মৃণাল সেনের জন্মশত বার্ষিকীতে দুই বাংলায় একই সঙ্গে মুক্তি পাবে বলেও আশাবাদী অভিনেতা। প্রসঙ্গত, ‘পদাতিক’ ছবিতে মৃণাল সেনের ব্যক্তিগত এবং পরিচালনার জীবনই বেশি থাকবে। ১৯৬৯ থেকে ১৯৭৩ সময়কালে তার বানানো কলকাতা ট্রিলজি ছবির অনেকটা জুড়ে থাকবে। ছবিতে মৃণাল সেনের স্ত্রী গীতা সেনের ভূমিকায় অভিনয় করছেন টলিউড অভিনেত্রী মনামী ঘোষ। যুবক মৃণাল সেনের ভূমিকায় দেখা যাবে কোরক সামন্তকে। মৃণালপুত্র কুণাল সেনের চরিত্রে দেখা যাবে সম্রাট চক্রবর্তীকে।

মোহাম্মদ তারেক